রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের শতভাগ বেতন-ভাতা প্রদানসহ পেনশন চালু এবং জনপ্রতিনিধিদের সম্মানী ভাতার দাবি না মানা হলে আমরণ অনশনে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছে বাংলাদেশ পৌরসভা সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন (বিএপিএস)। গতকাল সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে দ্বিতীয় দিনের মতো অবস্থান কর্মসূচি পালনকালে এ হুঁশিয়ারি দেন সংগঠনটির নেতাকর্মীরা।

অনির্দিষ্টকালের এই অবস্থান কর্মসূচিতে দেশের ৩২৮টি পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অংশ নিয়েছেন। ফলে এসব পৌরসভার দাপ্তরিক ও সেবা কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। দাবি বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত সব ধরনের সেবা বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন পৌরসভা কর্মীরা। আন্দোলনকারীরা জানান, দেশের প্রায় ৮৭ শতাংশ পৌরসভার কর্মকর্তা ও কর্মচারী ২ থেকে ৭৫ মাস পর্যন্ত বেতন-ভাতা থেকে বঞ্চিত। ফলে তারা মানবেতর জীবনযাপন করছেন। যে কারণে তাদের আন্দোলনে নামতে হয়েছে।

সংগঠনের সভাপতি আবদুল আলিম মোল্যা বলেন, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তারা প্রেস ক্লাব এলাকা ছাড়বেন না। তাই এ ব্যাপারে দ্রুত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করছেন তারা। আর আজকালের মধ্যে যদি কোনো পদক্ষেপ নেওয়া না হয়, তাহলে তারা আমরণ অনশনে যেতে বাধ্য হবেন।

যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মইন তুষার বলেন, রোববার থেকে তারা অবস্থান করছেন। রাতে এত সংখ্যক লোকের অবস্থান করতে অনেক অসুবিধা হয়েছে, তবুও তারা সেখানে রয়েছেন। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তারা কর্মসূচি চালিয়ে যাবেন। সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ইকরামুল হক বলেন, দাবির স্বপক্ষে স্মারকলিপি, মানববন্ধন ও সমাবেশ করে সরকারকে জানানোর চেষ্টা করেছেন তারা। কিন্তু তাতেও দাবির বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি।

সংগঠনটির রাজশাহী বিভাগীয় কমিটির সভাপতি মাহমুদুল ইসলাম বলেন, সরকার তাদের চাকরি দিয়েছে; কিন্তু বেতন দেয়নি। এটা কোনো নিয়ম হতে পারে না। তারা সরকারি কোষাগার থেকে বেতন চান।

একযোগে দেশের সব পৌরসভায় সেবা বন্ধ করে রোববার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য রাজধানীর পল্টনে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেন পৌরসভা কর্মীরা।

মন্তব্য করুন