পাস্তুরিত দুধ নিয়ে গবেষণার জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োমেডিকেল রিসার্স সেন্টারের সাবেক পরিচালক অধ্যাপক আ ব ম ফারুকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মহলের আক্রমণাত্মক বক্তব্য ও আচরণকে অগ্রহণযোগ্য উল্লেখ করে এর নিন্দা জানিয়েছেন বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬৬ জন শিক্ষক। এ ছাড়া হাইকোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী বাজারের দুধের নমুনা যথাযথভাবে পরীক্ষা করে জনমনের উদ্বেগ নিরসন করতে সংশ্নিষ্টদের প্রতি উদ্যোগ নেওয়ারও আহ্বান জানান তারা।

'বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক নেটওয়ার্কের শিক্ষকবৃন্দ' নামে গতকাল সোমবার এক বিবৃতিতে এ নিন্দা জানানো হয়। একই সঙ্গে তারা জনস্বাস্থ্যের সঙ্গে সম্পৃক্ত এসব বিষয়ে গবেষণাকে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে  যথাযথ পদক্ষেপ নিতে সরকার ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে তারা বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হিসেবে অধ্যাপক ফারুক জনগণের প্রতি দায়বদ্ধ। তিনি সে দায়িত্ব পালন করেছেন। তার গবেষণার ফল নিয়ে সন্দেহ থাকলে কর্তৃপক্ষ বিশেষজ্ঞদের নিয়ে আরও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দুধের মান নিয়ে জনমনে সন্দেহের অবসান ঘটাতে পারতেন। তা না করে অধ্যাপক ফারুককে ব্যক্তিগত আক্রমণ করে বিভিন্ন মহলের দায়িত্বশীল ব্যক্তিরা যে আচরণ করছেন, তা বিশ্ববিদ্যালয়ের জ্ঞানচর্চা ও গবেষণার পরিবেশের জন্য বিরাট হুমকি।

বিবৃতিদাতা শিক্ষকরা আরও বলেন, আমরা আরও হতাশার সঙ্গে লক্ষ্য করছি, 'স্বায়ত্তশাসিত' বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন এখানে অধ্যাপক ফারুককে কোনো সুরক্ষা ও সমর্থন তো দিচ্ছেই না, বরং নানাভাবে তার ওপর আরও চাপ তৈরি করা হচ্ছে।

বিবৃতিদাতা শিক্ষকদের মধ্যে রয়েছেন আনু মুহাম্মদ, গীতি আরা নাসরীন, তাসনীম সিরাজ মাহবুব, কাবেরী গায়েন, ফাহমিদুল হক, সৌভিক রেজা, রায়হান রাইন, কামরুল হাসান, মোশাহিদা সুলতানা, মোহাম্মদ তানজীমউদ্দিন খান, আইনুন নাহার, আ-আল মামুন, শরমিন্দ নীলোর্মি, সামিনা লুৎফা, মাহবুবুল হক ভূঁইয়া, কাজী শেখ ফরিদ, সুবর্ণা মজুমদার, জাভেদ কায়সার, রুশাদ ফরিদী, বখতিয়ার আহমেদ, কাজী মারুফুল ইসলাম, কাজী মামুন হায়দার প্রমুখ।

সচিবের শাস্তি দাবি :অধ্যাপক ফারুকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দেওয়া অতিরিক্ত সচিব কাজী ওয়াছি উদ্দিনের শাস্তির দাবি জানিয়েছে সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন গৌরব '৭১। গতকল দুপুরে রাজধানীর শাহবাগে এক প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে সংগঠনটির নেতাকর্মীরা এ দাবি জানান। আগামী ১০ কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত কমিটি গঠন করে সচিবের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা না নেওয়া হলে আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেন তারা।

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক এফ এম শাহিনের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক আ. জাহের, শিক্ষক ড. রায়হান, ঢাবি ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ সাকিব বাদশা প্রমুখ।





মন্তব্য করুন