বিএনপির শীর্ষ পর্যায়ের ইঙ্গিতেই শেখ হাসিনার ট্রেনে হামলা হয়েছিল হানিফ

প্রকাশ: ১৯ জুলাই ২০১৯

পাবনা অফিস

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ এমপি বলেছেন, ১৯৯৪ সালে পাবনার ঈশ্বরদীতে শেখ হাসিনাকে বহনকারী ট্রেনে গুলিবর্ষণ ও বোমা হামলা বিএনপির শীর্ষ পর্যায়ের ইঙ্গিতেই হয়েছিল। তিনি বলেন, শেখ হাসিনার ট্রেনবহরে গুলিবর্ষণ ও বোমা হামলা মামলায় বিএনপি দণ্ডপ্রাপ্ত সন্ত্রাসীদের পক্ষ নেওয়ায় এ চক্রান্তের সত্যতা মিলেছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার দোয়েল কমিউনিটি সেন্টারে পাবনা জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। হানিফ বলেন, শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টার ঘটনা সত্য ছিল বলেই ১৯৯৪ সালে বিএনপি ক্ষমতায় থাকা অবস্থায়ও মামলা নিতে বাধ্য হয়েছিল। নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে অপরাধ প্রমাণ হওয়ায় আদালত তাদের সাজা দিয়েছেন। বিএনপি একটি সন্ত্রাসী দল, এ দেশের অসংখ্য মানুষ তাদের সন্ত্রাসের কারণে প্রাণ হারিয়েছে। সরকার তাদের প্রতিটি অপরাধের বিচার করে দেশ থেকে এ ধরনের অপরাধ চিরতরে নির্মূল করবে। সাম্প্রতিক কুমিল্লা আদালতে বিচারকের এজলাসে হত্যাকাণ্ডকে বিচ্ছিন্ন ঘটনা উল্লেখ করে মাহবুবউল আলম হানিফ বলেন, বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিএনপি জনগণকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে। এসব মিথ্যাচার করার আগে বিএনপি নেতাদের আয়নায় মুখ দেখা উচিত। কারণ, তাদের শাসনামলে

রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় আদালতে বোমা হামলা করে ১২ আইনজীবীকে হত্যা

করা হয়েছিল।

জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক জামিরুল ইসলাম মাইকেলের সভাপতিত্বে ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে আরও বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি মোল্লা আবু কায়সার, সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ দেবনাথ এমপি, কেন্দ্রীয় নেতা তানভীর শাকিল জয়, রফিকুল ইসলাম লিটন, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক গোলাম

ফারুক প্রিন্স এমপি, শামসুর রহমান শরীফ ডিলু এমপি, শামসুল হক টুকু এমপি, আহমেদ ফিরোজ কবির এমপি, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রেজাউল রহিম লাল, জেলা যুবলীগ আহবায়ক আলী মর্তুজা বিশ্বাস প্রমুখ।