রিফাত হত্যার তদন্তে হস্তক্ষেপ নয় :হাইকোর্ট

প্রকাশ: ১৯ জুলাই ২০১৯

সমকাল প্রতিবেদক

বরগুনায় রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় করা মামলায় নিহতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে নেওয়া রিমান্ড বাতিলের আবেদনে কোনো আদেশ দেননি হাইকোর্ট। বরং হাইকোর্ট বলেছেন, মামলাটি তদন্ত পর্যায়ে রয়েছে। এ মুহূর্তে আমরা হস্তক্ষেপ করব না।

বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল বৃহস্পতিবার এ মন্তব্য করেন। এর আগে গতকাল মিন্নির রিমান্ড নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন হাইকোর্টের নজরে আনেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ফারুক হোসেন। তিনি এ সময় মিন্নির রিমান্ড বাতিলেরও নির্দেশনা চান।

ফারুক হোসেন আদালতে বলেন, এ মামলার প্রধান সাক্ষী ছিল আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি। বাদীর সবচেয়ে আস্থাভাজন হিসেবেই মিন্নিকে এক নম্বর সাক্ষী করা হয়েছে। অথচ তাকে ১২ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। এর পর রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। এটা অমানবিক। মূল হোতাদের আড়াল করতেই মামলার প্রধান সাক্ষীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এ সময় হাইকোর্ট বলেন, পুলিশ তদন্ত করছে। এখন আমরা হস্তক্ষেপ করতে পারি না। তখন আইনজীবী বলেন, তদন্ত সঠিক পথে হতে হবে। মিন্নিকে ১২ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করে আদালতে তোলা হয়। আদালত পাঁচ দিনের রিমান্ড দিয়েছেন। সে তো সাক্ষী। তাকে পরেও গ্রেফতার করা যেত। তাই বিষয়টি উচ্চ আদালতের দেখা উচিত। তাছাড়া তার পক্ষে কোনো আইনজীবীও দাঁড়াচ্ছেন না। এ সময় আদালত বলেন, পুলিশ বলছে, তার বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ আছে। এখন আপনার কিছু করার থাকলে ফৌজদারি আইন ও নিয়ম মেনে করুন। যথাযথ আইনগত প্রক্রিয়া অনুসরণ করুন।

আদালত আরও বলেন, নিম্ন আদালতেই এ আবেদন করার সুযোগ রয়েছে। আপনারা সেখানে যান। আদালত পরিবর্তনের আবেদনও করতে পারেন। এমনকি ফৌজদারি কার্যবিধি অনুযায়ী হাইকোর্টে বিচারের আবেদন করারও সুযোগ রয়েছে।