ব্যাগ থেকে বের হলো শিশুর খণ্ডিত মস্তক

প্রকাশ: ১৯ জুলাই ২০১৯

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

নেত্রকোনায় শিশুর খণ্ডিত মস্তক বহনকারী এক যুবক গণপিটুনিতে নিহত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা শহরের নিউটাউন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ওই যুবকের লাশ এবং খণ্ডিত মস্তক ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। নিহত যুবকের নাম মো. রবিন (৩২)। তিনি কাটলী এলাকার রিকশাচালক এখলাস উদ্দিনের ছেলে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার দুপুরে ওই যুবক বারহাট্টা রোডে শ্রমিক ইউনিয়নের সামনে মেথরপট্টিতে মদপান করার পর মাতলামি করছিল। এ সময় তার কাছে থাকা ব্যাগ থেকে একটি শিশুর গলাকাটা মস্তক মাটিতে পড়লে এলাকাবাসী দেখে ফেলে। মুহূর্তে খবরটি আশপাশে ছড়িয়ে পড়লে উত্তেজিত শত শত জনতা ওই যুবককে ধাওয়া করে নিউটাউন পচা পুকুরপাড়ে গণপিটুনি দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে লাশ ও মস্তক উদ্ধার করে। পরে নিহত শিশুটির দেহ কাটলী এলাকার

নির্মাণাধীন তিনতলা ভবনের ছাদ থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনার পর থেকে শহরের মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। শিশুদের নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন অভিভাবকরা।

শিশুটির বিচ্ছিন্ন মস্তকের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। পরে শিশুটির বাবা কাটলী এলাকার রিকশাচালক রইস উদ্দিন থানায় গিয়ে সেটি তার ছেলের বলে শনাক্ত করেন। তিনি জানান, তার ছেলের বয়স ৮ বছর। সকালে ছেলে তার কাছে আইসক্রিম খাওয়ার জন্য টাকা চায়, কিন্তু তখন তিনি টাকা দিতে পারেননি। এরপর থেকে শিশুটি নিখোঁজ ছিল। নেত্রকোনা মডেল থানার ওসি তাজুল ইসলাম জানান, বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।