কাপ্তাই হ্রদে ভেসে উঠল 'প্রেমিক যুগলে'র লাশ

প্রকাশ: ২৬ জুলাই ২০১৯      

রাঙামাটি অফিস

রাঙামাটির বড়াদম এলাকার কাপ্তাই হ্রদে ভাসমান কলেজপড়ূয়া 'প্রেমিক যুগলে'র লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। নিখোঁজের তিন দিন পর গতকাল বৃহস্পতিবার পুলিশ লাশ দুটি উদ্ধার করে। তারা হলেন- হিমেল দেওয়ানজী প্রান্ত (১৮) ও তাহফিমা খানম তিন্নি (১৮)। পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে, দুই ধর্মের হওয়ায় প্রেমের সফলতার সম্ভাবনা না দেখে তারা আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত মঙ্গলবার সকাল ৭টার দিকে হিমেল তার ফেসবুক আইডিতে 'আলবিদা' স্ট্যাটাস দিয়ে শহরের রিজার্ভ বাজারের ১নং পাথরঘাটার বাসা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর নিখোঁজ হয়। তার স্বজনরা তাকে অনেক স্থানে খোঁজাখুঁজি করেও পায়নি। তবে এরই মধ্যে শহরের বনরূপা কাঁঠালতলী থেকে তাহফিমা খানম তিন্নি নামের এক মেয়ে নিখোঁজ হওয়ার খবর পাওয়া যায়। অবশেষে নিখোঁজের তিন দিন পর গতকাল সকালের দিকে রাঙামাটি শহরের অদূরে মগবান ইউনিয়নের বড়াদমের মোরঘোনা এলাকার আসামবস্তি-কাপ্তাই সড়কের পাশে হ্রদের পানিতে দু'জনের লাশ ভাসতে দেখা যায়। স্থানীয়রা

লাশ দুটি দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

হিমেল রাঙামাটি শহরের রিজার্ভ বাজারের ওষুধ ব্যবসায়ী ছোটন দেওয়ানজীর ছেলে এবং তাহফিমা খানম তিন্নি চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার নটুয়ার টিলার শহীদ তালুকদারের মেয়ে। তিন্নি শহরের বনরূপার কাঁঠালতলী এলাকায় এক আত্মীয়ের বাসায় থেকে রাঙামাটি লেকার্স পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের দ্বাদশ শ্রেণিতে পড়তেন। হিমেল ঢাকার ক্যামব্রিয়ান স্কুল অ্যান্ড কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র ছিলেন।

হিমেলের বাবা ছোটন দেওয়ানজী বলেন, প্রেমের কারণে দু'জন আত্মহত্যা করতে পারে। তবে আমরা আসলে কিছুই জানতাম না। ভেবেছিলাম, কোনো কারণে ছেলে নিখোঁজ হয়েছে। কিন্তু কেন ছেলে এমনটা করল বুঝতে পারছি না।

তিন্নির আত্মীয় নূরুল আলম মিয়া জানান, আমরা আসলে কিছুই বুঝতে পারছি না। আমার বাসায় থেকে তিন্নি পড়াশোনা করত। কিন্তু কীভাবে কী হলো কিছুই বুঝতে পারছি না।

রাঙামাটি কোতোয়ালি থানার ওসি মীর জাহেদুল হক রনি জানান, এ ব্যাপারে একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।