সিলেটে রবীন্দ্রনাথ শতবর্ষ স্মরণোৎসবের লোগো উন্মোচন

প্রকাশ: ০৫ জুলাই ২০১৯

সিলেট ব্যুরো

সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেছেন, বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কেবল আমাদের কবি ছিলেন না, তিনি ছিলেন বিশ্বের কবি। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বাঙালির শির উচ্চ করেছেন। তিনি আমাদের গর্বের ধন। গত বুধবার রাতে নগরীর মেন্দিবাগে জালালাবাদ গ্যাস অডিটোরিয়ামে 'সিলেটে রবীন্দ্রনাথ : শতবর্ষ স্মরণোৎসব ১৯১৯-২০১৯' অনুষ্ঠানের লোগো উন্মোচন ও উৎসব আবাহনমূলক বক্তব্যে স্মরণোৎসবের আহ্বায়কের বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আনুষ্ঠানিকভাবে লোগো উন্মোচনের আগে আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেন, আমরা বিশ্বকবির সিলেট আগমনের শতবর্ষপূর্তিকে ঘিরে তার আগ্রহের জায়গাগুলোতে উৎসব আয়োজন করছি। এতে সবার সহযোগিতা প্রয়োজন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য দেন স্মরণোৎসব পর্ষদের সদস্য সচিব ও সিলেটের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। এ সময় তিনি জানান, রবীন্দ্রনাথের

সিলেট আগমনের শতবর্ষপূর্তির মূল অনুষ্ঠান হবে আগামী ৮ ও ৯ নভেম্বর। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৮ নভেম্বর অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন। মেয়র বলেন, রবীন্দ্রনাথের সিলেট আগমনের শতবর্ষপূর্তিতে আনন্দ শোভাযাত্রা, দেশ-বিদেশের রবীন্দ্র-বিশেষজ্ঞদের নিয়ে আলোচনা সভা, বরেণ্য শিল্পীদের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের মধ্যে আবৃত্তি ও প্রবন্ধ প্রতিযোগিতা, স্মরণিকা ও স্মারকগ্রন্থ প্রকাশ করা হবে।

সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব অধ্যাপক শামীমা চৌধুরী ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট সিলেটের সভাপতি আমিনুল ইসলাম চৌধুরী লিটনের

যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, সিলেটে নিযুক্ত ভারতের সহকারী হাইকমিশনার এল কৃষ্ণমূর্তি, সিলেট চেম্বারের প্রশাসক আসাদ উদ্দিন, ব্যারিস্টার আরশ আলী, বেদানন্দ ভট্টাচার্য, সৈয়দা জেবুন্নেছা হক, ড. আবুল ফতেহ ফাত্তাহ, কমরেড ধীরেন সিংহ, কমরেড সিকন্দর আলী প্রমুখ।

সর্বশেষ স্মরণোৎসবের লোগো উন্মোচনের পর সমবেত রবীন্দ্রসঙ্গীত, মণিপুরি নৃত্য ও আবৃত্তি পরিবেশিত হয়।