গোলাম সারওয়ারের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

প্রকাশ: ১৫ আগস্ট ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

গোলাম সারওয়ারের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

মঙ্গলবার রাজধানীর মিরপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে গোলাম সারওয়ারের কবরে সমকাল পরিবার শ্রদ্ধা নিবেদন করে - সমকাল

বরেণ্য সম্পাদক গোলাম সারওয়ারের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী পালন করা হয়েছে গত মঙ্গলবার। গত বছরের ১৩ আগস্ট সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন। সাংবাদিকতার বাতিঘরখ্যাত গোলাম সারওয়ারের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে মঙ্গলবার তার পরিবার, সমকালসহ বিভিন্ন সংগঠন পৃথক কর্মসূচি পালন করে। ঢাকায় তার উত্তরার বাসভবনে এবং জন্মস্থান বরিশালের বানারীপাড়ায় দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়। তবে ঈদের ছুটি থাকার কারণে সমকাল ও গোলাম সারওয়ার ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে স্মরণসভার আয়োজন করা হবে এ মাসের শেষ দিকে।

গোলাম সারওয়ারের মৃত্যুবার্ষিকীতে রাজধানীর মিরপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে তার কবরে সমকাল পরিবার শ্রদ্ধা নিবেদন করে। পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ শেষে গোলাম সারওয়ারের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করে মোনাজাত করা হয়। এ সময় সমকালের বার্তা সম্পাদক মশিউর রহমান টিপু, ফিচার সম্পাদক

মাহবুব আজীজ, বার্তা সম্পাদক (অনলাইন) গৌতম মণ্ডল, প্রধান প্রতিবেদক লোটন একরাম, মহাব্যবস্থাপক (সার্কুলেশন) হারুন অর রশিদ, বিশেষ প্রতিনিধি আবু কাওসার, সাহাদাত হোসেন পরশসহ সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে দুবাইয়ে গোলাম সারওয়ারের মৃত্যুবার্ষিকীতে স্মরণসভার আয়োজন করা হয়। সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ের একটি হোটেলে সেখানকার প্রেস ক্লাব এই স্মরণসভার আয়োজন করে। সংগঠনের সভাপতি শিবলী সাদিকের সভাপতিত্বে সভায় মোরশেদ আলম, সিরাজুল হক, কামরুল হাসান জনি প্রমুখ বক্তব্য দেন।

মুক্তচিন্তা, প্রগতিশীল মূল্যবোধ ও মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষে সোচ্চার গোলাম সারওয়ার ছিলেন বাংলাদেশের সাংবাদিকতা জগতের প্রতিষ্ঠানতুল্য ব্যক্তিত্ব। ষাটের দশকে সাংবাদিকতার শুরু থেকে একটানা পাঁচ দশকের বেশি সময় তিনি মেধা, যুক্তিবোধ, পেশাদারিত্ব, দায়িত্বশীলতা, অসাম্প্রদায়িক চিন্তা-চেতনার নিরবচ্ছিন্ন চর্চায় নিজেকে এবং বাংলাদেশের সংবাদপত্রকে অনন্য উচ্চতায় প্রতিষ্ঠিত করেছেন। গোলাম সারওয়ার ২০১৪ সালে সাংবাদিকতায় একুশে পদকে ভূষিত হন। আমৃত্যু তিনি দৈনিক সমকালের সম্পাদক ছিলেন। একই সময়ে বাংলাদেশের দৈনিক সংবাদপত্রগুলোর সম্পাদকদের সংগঠন বাংলাদেশ সম্পাদক পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটের (পিআইবি) চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন।