তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, 'বিএনপি খুনির দল। জিয়াউর রহমান বঙ্গবন্ধু হত্যার প্ররোচক, ষোলশ' সেনাসদস্য হত্যা করেছেন। তার স্ত্রী খালেদা জিয়ার কারণে শত শত মানুষ আগুনে পুড়ে মারা গেছে। আর ফখরুল-রিজভীরা সেই খুনিদের দোসর। অন্য দেশে হলে, এদের শুধু বিচারই হতো না, রাজনীতি করার অধিকারও থাকত না।'

গতকাল শনিবার দুপুরে ঢাকার তেজগাঁওয়ে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশন-বিএফডিসির জহির রায়হান হলে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে চলচ্চিত্র লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ও ২০০৪ সালের  ২১ আগস্টের মর্মান্তিক হত্যাকাণ্ড স্মরণ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে ক্ষমতা দখল করেন। ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্যও হত্যাকাণ্ড ঘটান। জিয়া বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের পুরস্কৃত করেন। তাদের অপরাধের বিচার বন্ধ করতে সংসদে 'ইনডেমনিটি বিল' পাস করান। আর খালেদা জিয়া ওই খুনিদের মন্ত্রী-এমপি বানিয়ে তাদের হাতে জাতীয় পতাকা তুলে দেন।

তথ্যমন্ত্রী আরও বলেন, শুধু তাই নয়, জাতির পিতার হত্যাকাণ্ডকে উপহাস করার জন্যই খালেদা জিয়া নিজের জন্মতারিখ পরিবর্তন করে ১৫ আগস্ট বানিয়ে কেককাটা উৎসব করেছেন। এখন জনগণের ঘৃণার কারণে জন্মদিন ১৫ আগস্ট রেখে পরদিন কেক কাটেন। অন্য দেশে এমন জন্মতারিখ পরিবর্তনকারীকে হয় মস্তিস্কবিকৃতি আখ্যা দিত, নয়তো জালিয়াতির দায়ে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করাত।'

ড. হাছান বলেন, বঙ্গবন্ধুর হাত ধরেই বাংলাদেশে চলচ্চিত্রের সূচনা হয়েছে এবং শেখ হাসিনার সরকার তাকে পুনরুজ্জীবিত করছে। সমাজের বিত্তবানদের এ শিল্পে বিনিয়োগে এগিয়ে আসা প্রয়োজন।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র লীগের সভাপতি মিয়া আলাউদ্দিনের সভাপতিত্বে চলচ্চিত্র প্রযোজক পরিবেশক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু, চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার, চিত্রনায়ক আলমগীর, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোল্লা মো. আবু কাউছার ও ঢাকা দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক আরিফুর রহমান টিটো, চলচ্চিত্র অভিনয়শিল্পী মৌসুমী, ফেরদৌস প্রমুখ সভায় অংশ নেন।

মন্তব্য করুন