মোজাফফর আহমদকে ফুলেল শ্রদ্ধা, আজ দাফন

প্রকাশ: ২৫ আগস্ট ২০১৯

সমকাল প্রতিবেদক

লাখো মানুষের ফুলেল শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় সিক্ত হলেন ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (ন্যাপ) সভাপতি ও মুক্তিযুদ্ধকালীন প্রবাসী সরকারের উপদেষ্টা অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ।

গতকাল শনিবার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদন এবং জাতীয় সংসদ ভবন ও বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে দু'দফা জানাজায় ছিল মানুষের উপচেপড়া ভিড়। পাশাপাশি বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে রাষ্ট্রীয় সম্মানও দেওয়া হয়েছে প্রবীণ এই জননেতাকে। রাতেই দাফনের উদ্দেশ্যে তার মরদেহ নেওয়া হয়েছে নিজ গ্রাম কুমিল্লার দেবীদ্বার উপজেলার এলাহাবাদে। আজ রোববার সকাল ১০টায় কুমিল্লা টাউন হল ময়দানে তৃতীয় এবং বাদ জোহর এলাহাবাদে চতুর্থ ও শেষ জানাজা শেষে নিজ গ্রামে সমাহিত করা হবে তাকে।

গতকাল সকাল ১১টায় রাজধানীর বারিধারার মেয়ের বাসা থেকে বাংলাদেশের রাজনীতির কীর্তিমান ব্যক্তিত্বের মরদেহ নেওয়া হয় জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায়। সেখানে প্রথম জানাজা ও রাষ্ট্রীয় সম্মান শেষে সাড়ে ১১টায় মরদেহ শেষবারের মতো নেওয়া হয় ধানমণ্ডি হকার্স মার্কেটের ন্যাপ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে। সেখানে তার রাজনৈতিক সহযোদ্ধা ও সহকর্মীরা শেষ শ্রদ্ধা জানান।

দুপুর ১২টায় মরদেহ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আনা হয় সর্বসাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য। দুপুর পর্যন্ত চলা এই আয়োজনে ফুলে ফুলে ভরে যায় মরদেহ। এক মিনিট নীরবতা পালনের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদনের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করা হয়।

সেখানে শ্রদ্ধা নিবেদনের শুরুতে অধ্যাপক  মোজাফফরের একমাত্র মেয়ে আইভী আহমদ বলেন, তার বাবা সারাজীবন গরিব মানুষের জন্য আন্দোলন-সংগ্রাম করেছেন। বাংলাদেশের সংবিধানের চারটি স্তম্ভের পূর্ণ বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশের সব মানুষের মৌলিক চাহিদা পূরণ হলেই তার বাবার স্বপ্ন পূরণ হবে।

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আওয়ামী লীগের পক্ষে শ্রদ্ধা জানান দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট আবদুল মতিন খসরু, সভাপতিমণ্ডলীর সাবেক সদস্য নূহ-উল-আলম লেনিন এবং আইন সম্পাদক ও গণপূর্তমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শ. ম. রেজাউল করিম। বিএনপির পক্ষে শ্রদ্ধা জানান দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান ও ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আহমদ আজম খান। ১৪ দলের পক্ষে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনু, সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ূয়া, বাংলাদেশ জাসদের সভাপতি শরীফ নূরুল আম্বিয়া, সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ূয়া, কমিউনিস্ট কেন্দ্রের আহ্বায়ক ডা. ওয়াজেদুল ইসলাম খান, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদাৎ হোসেন প্রমুখ।

দলীয় নেতাদের নিয়ে শ্রদ্ধা জানান বিকল্পধারার প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, ঐক্য ন্যাপের সভাপতি পঙ্কজ ভট্টাচার্য, জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব এবং গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অধ্যাপক আবু সাইয়িদ। বাম গণতান্ত্রিক জোটের পক্ষে ছিলেন সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, উপদেষ্টা মনজুরুল আহসান খান, বাসদের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি প্রমুখ।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের চিফ প্রসিকিউটর গোলাম আরিফ টিপু, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ্‌ চৌধুরী ও সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের সহসভাপতি অধ্যাপক মুনতাসীর মামুনও শ্রদ্ধা জানান। আরও শ্রদ্ধা জানান ওয়ার্কার্স পার্টি, জাসদ, সিপিবি, বাসদ, সাম্যবাদী দল, বাংলাদেশ জাসদ, ঐক্য ন্যাপ, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি, গণসংহতি আন্দোলন, বাসদ (মার্কসবাদী), গণতান্ত্রিক বাম ঐক্য, বাম গণতান্ত্রিক মোর্চা, সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ, জাতীয় জাদুঘর, ন্যাপ-কমিউনিস্ট-ছাত্র ইউনিয়ন বিশেষ গেরিলা বাহিনী, জাতীয় কবিতা পরিষদ, ইতিহাস সম্মিলনী পরিষদ, স্কপ, মহিলা পরিষদ, কলেজ শিক্ষক সমিতি, যুব ইউনিয়ন, যুব মৈত্রী, ছাত্র ইউনিয়ন, ছাত্র মৈত্রী, ছাত্র ফোরাম, ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র (টিইউসি), গার্মেন্টস শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র, অর্থনীতি সমিতি, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, বাঙালি সংস্কৃতি মঞ্চ, সঙ্গীত পরিষদ, খেলাঘর ও আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তানসহ বিভিন্ন দল ও সংগঠনের নেতারা। ছিলেন সাধারণ মানুষও।

বাদ আসর বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে মরহুমের দ্বিতীয় নামাজে জানাজায় বিভিন্ন দল ও সংগঠনের নেতা, মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী, সংসদ সদস্য ও গণ্যমান্য ব্যক্তিরা যোগ দেন। জানাজায় ইমামতি করেন বায়তুল মোকাররমের পেশ ইমাম মুফতি মিজানুর রহমান।

অধ্যাপক মোজাফফর আহমেদ শুক্রবার রাতে রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। ৯৭ বছর বয়সী এই রাজনীতিবিদ স্ত্রী ও এক মেয়েসহ বহু আত্মীয়স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।