সমকামী দুই তরুণীর 'ঘর বাঁধা' ও নিরপরাধ যুবকের জেলজীবন

প্রকাশ: ২৬ আগস্ট ২০১৯      

রাজশাহী ব্যুরো

সমকামিতায় জড়িয়ে 'নিখোঁজ' বরিশালের বিএনপি নেতার এক মেয়েসহ দুই তরুণী রাজশাহীতে বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করছিলেন। ওই বিএনপি নেতার মেয়েকে অপহরণের অভিযোগে গ্রেফতার হয়ে কারাগারে বন্দি আছেন বরিশালের বাসিন্দা নিরপরাধ যুবক উজ্জ্বল হোসেন রানা। গতকাল রোববার বরিশাল মহানগর হাকিম আদালতে দুই তরুণীকে হাজির করে পরিবারের কাছে তাদের হস্তান্তর করে পুলিশ। কিন্তু মুক্তি মেলেনি রানার।

গত ১৯ মার্চ নিখোঁজ হন দুই তরুণী। এ ঘটনায় তিনজনকে আসামি করে অপহরণ মামলা করেন এক তরুণীর বাবা বরিশালের স্থানীয় এক বিএনপি নেতা।

দুই তরুণীকে উদ্ধার অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বরিশালের কোতোয়ালি থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ফিরোজ আল মামুন বলেন, গত ১৮ এপ্রিল ওই বিএনপি নেতা বাদী হয়ে তার মেয়েকে অপহরণের অভিযোগ এনে থানায় মামলা করেন। মামলায় নগরীর অক্সফোর্ড মিশন রোডের আমজাদ মঞ্জিলের ভাড়াটিয়া আব্দুর রহমান দুলাল ফকিরের ছেলে উজ্জ্বল হোসেন রানা, দুলাল ফকিরের স্ত্রী আলেয়া বেগম ও মেয়ের জামাই মাসুমকে আসামি করা হয়।

রানার সঙ্গে ওই নেতার মেয়ের মোবাইল ফোনে প্রায়ই কথা হতো বলে তাকে সন্দেহ করে মামলার আসামি করা হয়েছে। রানা ঢাকায় চাকরি করতেন। পুলিশ ঢাকার গুলশান থেকে তাকে গ্রেফতার করে। রানা এখানও কারাগারে আছেন।

পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, যুবক রানাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে কোনো তথ্য মিলছিল না। টানা চার মাস ধরে নিখোঁজ দুই তরুণীর  সন্ধান করছিল পুলিশ। পরে তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় রাজশাহী মহানগর এলাকায় তাদের অবস্থান নিশ্চিত হওয়া যায়। এরপর পুলিশের  একটি টিম শনিবার দিনভর অভিযান চালিয়ে রাজশাহী মহানগরের শাহমখদুম থানার নওদাপাড়া এলাকায় আব্দুল্লাহ আল মাহমুদের  বাড়ি থেকে তাদের উদ্ধার করে।

এসআই মামুন বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে তরুণীরা স্বীকার করেছেন তারা অপহৃত হননি। তারা সমকামী। স্বেচ্ছায় পালিয়ে গিয়ে রাজশাহীতে 'ঘর বাঁধেন। স্বামী পরিচয় দিয়ে এক যুবককেও টাকা দিয়ে ভাড়া করেছিলেন এক তরুণী। যাতে কেউ সন্দেহ না করে।