চট্টগ্রামে ১১ ডাকাত গ্রেফতার

প্রকাশ: ২৬ আগস্ট ২০১৯      

চট্টগ্রাম ব্যুরো

চট্টগ্রামে ১১ ডাকাত গ্রেফতার

রোববার চট্টগ্রাম নগরের কোতোয়ালি থানার লালদীঘি পাড়ের জেলা পরিষদ সুপার মার্কেটে অবস্থিত হোটেল তুনাজ্জিনা থেকে আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ১১ সদস্যকে গ্রেফতার করে পুলিশ- সমকাল

চট্টগ্রামে আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ১১ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল রোববার ভোর পর্যন্ত নগরের কোতোয়ালি থানার লালদীঘি পাড়ের জেলা পরিষদ সুপার মার্কেটে অবস্থিত হোটেল তুনাজ্জিনা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার ১১ জন হলো হানিফ ওরফে হাতপোড়া হানিফ, মো. কামাল হোসেন, মো. লিয়াকত হোসেন, মো. আকরাম ওরফে সাগর, মো. তৌফিক, মো. মাসুম, মো. মিজান, নয়ন মল্লিক, মো. মিলন, জামাল উদ্দিন, মো. কামাল ওরফে ভুসি কামাল ওরফে জসিম। তাদের বাড়ি দেশের বিভিন্ন জেলায়। তাদের কাছ থেকে দুটি এলজি, একটি লোহার কার্টার, একটি লোহার রড ও চারটি কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মহসীন সমকালকে বলেন, নগরের নন্দনকানন ও জুবিলী রোড এলাকায় দুটি ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে চুরির ঘটনা তদন্ত করতে গিয়ে এই ডাকাত চক্রের সন্ধান মেলে। তারা নগরের একটি হোটেলে অবস্থান করছে- এমন খবর পেয়ে অভিযান চালানো  হয়। অভিযানে ১১ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারের পর তারা স্বীকার করেছে- এই দলের সদস্যরা সারাদেশে ঘুরে বিভিন্ন দোকান, ব্যবসা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে ডাকাতি করে। সাধারণত মোবাইল, ল্যাপটপ এবং নগদ টাকা ডাকাতি করে তারা।

অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া কোতোয়ালি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. কামরুজ্জামান সমকালকে জানান, গ্রেফতার ১১ জনের মধ্যে একেক জন একেক কাজ করে। সারাদিন ঘুরে ঘুরে নগদ টাকা লেনদেন হয় এমন প্রতিষ্ঠান টার্গেট করে হানিফ। এরপর কামালকে খবর দেয়। কামাল ডাকাতির পরিকল্পনা করার পর দলের অন্য সদস্যদের জড়ো করে। রাতের বেলা ভবঘুরের ভান করে টার্গেট করা দোকানের সামনে আশ্রয় নেয় দলের কিছু সদস্য। কয়েকজন মিলে কৌশলে বিছানার চাদর মেলে ধরে। এর আড়ালে দু'জন তালা কেটে কিংবা দোকানের শার্টার ফাঁক করে ভেতরে ঢুকে যায়। কয়েক মিনিটের মধ্যে দোকানের ক্যাশ বাক্স লুট ও বিভিন্ন মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে চম্পট দেয় ডাকাত দলের সদস্যরা। এ সময় তাদের একটি গ্রুপের কাছে অস্ত্রও থাকে। কোনো ধরনের বাধার সম্মুখীন হলে অস্ত্র ব্যবহার করে তারা। হানিফের নেতৃত্বে এ ধরনের ছোট ছোট নয়টি গ্রুপ রয়েছে। এসব গ্রুপের সদস্য প্রায় ৪৫ থেকে ৫০ জন।