দুদক থেকে বেরিয়ে সাবেক কারা মহাপরিদর্শক

দুর্নীতি রোধে ব্যর্থতার দায় এড়াতে পারি না

প্রকাশ: ২৬ আগস্ট ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

চট্টগ্রাম কারাগারের ক্যান্টিনে দুর্নীতির ঘটনাকে প্রশাসনিক ব্যর্থতা উল্লেখ করে সদ্য সাবেক কারা মহাপরিদর্শক (আইজি-প্রিজন) সৈয়দ ইফতেখার উদ্দিন বলেছেন, বিগত দিনে কারা অধিদপ্তরের প্রধান হিসেবে ওই সময়কার প্রশাসনিক ব্যর্থতার দায় এড়াতে পারি না। রোববার দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) জিজ্ঞাসাবাদের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

দুদক পরিচালক মুহাম্মদ ইউছুফের নেতৃত্বে একটি বিশেষ টিমের সদস্যরা রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন সকাল দশটা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত। টিমের অন্য সদস্য হলেন সহকারী পরিচালক মো. সালাহউদ্দিন।

গত ২৯ জুলাই চট্টগ্রাম কারাগারের সাবেক (বর্তমানে সিলেট কারাগার) ডিআইজি (প্রিজন) পার্থ গোপাল বণিকের ঢাকার বাসা থেকে দুর্নীতির মাধ্যমে অর্জিত ৮০ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়। বর্তমানে ওই কর্মকর্তা কারাগারে আছেন। চট্টগ্রাম কারাগারে ডিআইজির (প্রিজন) দায়িত্ব পালনকালে কারাগারের ক্যান্টিনে অনিয়ম, দুর্নীতির মাধ্যমে ওই ৮০ লাখ টাকা হস্তগত করেছেন তিনি। দুর্নীতির এই অভিযোগকে ঘিরে গতকাল জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় সদ্য সাবেক কারা মহাপরিদর্শককে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সৈয়দ ইফতেখার বলেন, সংস্থার প্রধান হিসেবে তাদের এই দুর্নীতি আমি চিহ্নিত (আইডেন্টিফাই) করতে পারিনি। এটা আমার ব্যর্থতা। বাকিটা প্রমাণসাপেক্ষ। তদন্তে কী বেরিয়ে আসে, সেটা দুদক বলবে।