বঙ্গবন্ধু হত্যার পর সাম্প্রদায়িক রাজনীতি পুনঃপ্রবর্তন হয় - আমির হোসেন আমু

প্রকাশ: ২৬ আগস্ট ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর সাম্প্রদায়িক রাজনীতি পুনঃপ্রবর্তন করা হয় বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য ও সাবেক শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পেছনে ছিল জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র। এ হত্যাকাণ্ড শুধু রাজনৈতিক অঙ্গনে সীমাবদ্ধ ছিল না। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের বিচার না করার জন্য ইনডেমনিটি আইন পাস করে জিয়াউর রহমান তাদের পুনর্বাসন করেন। ১৯৭৫ সালের পর বিভিন্ন সরকার বঙ্গবন্ধুর খুনিদের পুনর্বাসন করে গেছে বলে তিনি জানান।

গতকাল রোববার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। আওয়ামী শিল্পী গোষ্ঠী এ স্মরণসভার আয়োজন করে। আমির হোসেন আমু আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যার পর সংবিধানের চার মূলনীতিকে ছুড়ে ফেলে দেওয়া হয়। সাম্প্রদায়িক রাজনীতি পুনঃপ্রবর্তন করা হয়।

সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মহিলা ও শিশু মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেন, ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার অন্যতম উদ্দেশ্য ছিল দেশকে পাকিস্তানি কায়দায় পরিচালনা করা। ১৫ আগস্ট ও ২১ আগস্ট হত্যাকাণ্ড একসূত্রে গাঁথা।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি সালাউদ্দিন বাদলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ। আলোচনা শেষে অনুষ্ঠানে আওয়ামী শিল্পী গোষ্ঠীর শিল্পীরা শোক সঙ্গীত পরিবেশন করেন।