এডিস মশা নিধন অভিযানে কারাদণ্ড জরিমানা

প্রকাশ: ২৬ আগস্ট ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

ডেঙ্গু রোগের জীবাণুবাহী এডিস মশা, লার্ভা ও মশার প্রজনন উপযোগী পরিবেশ থাকার দায়ে দু'জনকে কারাদণ্ড, ছয়টি ভবন মালিক ও একটি ডেভেলপার প্রতিষ্ঠানকে ২ লাখ ৩৬ হাজার টাকা জরিমানা ও পাঁচ বাড়ির মালিককে সতর্ক করেছেন ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের ভ্রাম্যমাণ আদালত। গতকাল ভ্রাম্যমাণ আদালত রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালান।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) জানায়, ডিএনসিসির ৩৬টি ওয়ার্ডে (১ থেকে ৩৬) 'চিরুনি অভিযান' চালানো হয়। এ সময় ২৫৮টি বাড়িতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া যায়। এসব বাড়ির সামনে 'এ বাড়ি/প্রতিষ্ঠানে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া গিয়াছে' সংবলিত স্টিকার লাগানো হয়। অভিযানকালে ৩ হাজার ১২৩টি বাড়ি ও স্থাপনায় এডিস মশার বংশবিস্তারের অনুকূল পরিবেশ ধ্বংস করা হয়।

ডিএনসিসির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাজিদ আনোয়ারের নেতৃত্বে গুলশানে অভিযানকালে জিএস কনস্ট্রাকশন কোম্পানিকে ২ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। এদিকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) জানায়, মিরপুর রোডের ৪৩ ও ৪৪ নম্বর হোল্ডিংয়ে এডিস মশার লার্ভা পাওয়ায় ভবন দুটির দুই নিরাপত্তাকর্মী সাজু ও নজরুলকে এক দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মিজানুর রহমান।

শান্তিনগরের টুইন টাওয়ারে এডিস মশার লার্ভা ও পানি জমে থাকার কারণে ৩০ হাজার টাকা এবং যাত্রাবাড়ী এলাকার পাঁচটি বাড়িতে নোংরা ও অপরিচ্ছন্ন পরিবেশ পাওয়ায় ৬ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শেখ জাহিদ হাসান। যাত্রাবাড়ী এলাকায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সোনিয়া আক্তার ও মো. শহীদুল্লাহর নেতৃত্বে অভিযানকালে পাঁচটি বাড়িতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়ায় ওই বাড়ির মালিকদের কাছ থেকে ৬ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

এ ছাড়া নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বাবর আলী ও উদয়ন দেওয়ানের নেতৃত্বেও রাজধানীর কয়েকটি এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চলে। এ সময় তারা ৯০টি বাড়ি পরিদর্শন করলেও সেখানে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া যায়নি।

ডিএসসিসি জানায়, ডিএসসিসির পক্ষ থেকে ২৫ আগস্ট পর্যন্ত ৭২ হাজার ২৪৩টি বাড়ি পরিদর্শন করা হয়। এ সময় এডিস মশা, লার্ভা ও প্রজনন অনুকূল পরিবেশ পাওয়ার দায়ে চারজনকে কারাদণ্ড, ১৬ বাড়ির মালিককে সতর্কীকরণ এবং ৩১ লাখ ৯০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।