সিলেট সীমান্তের অস্ত্র ব্যবসায়ী আরব আলীকে গ্রেফতার

প্রকাশ: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯      

সিলেট ব্যুরো

সিলেট সীমান্ত দিয়ে ভারত থেকে অবৈধ অস্ত্র চোরাচালানের হোতা আরব আলীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত মঙ্গলবার রাতে জেলার গোয়াইনঘাট উপজেলার বিছনাকান্দি এলাকা থেকে দুটি রিভলভারসহ তাকে গ্রেফতার করা হয়। বিছনাকান্দির নোয়াগাঁওয়ের ওয়াতির আলীর ছেলে আরব আলী কয়েক বছর ধরে গোয়াইনঘাট উপজেলা সীমান্ত দিয়ে অস্ত্র চোরাচালানের সঙ্গে জড়িত। গতকাল বুধবার সকালে সিলেটের পুলিশ সুপার মো. ফরিদুজ্জামান এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

পুলিশ সুপার জানান, দু'বছর ধরে আরব আলী গোয়াইনঘাট সীমান্তবর্তী সোনারহাট সীমান্ত হাট দিয়ে অস্ত্র চোরাচালানের সঙ্গে জড়িত। বারিক নামে ভারতের খাসিয়া সম্প্রদায়ের একজনের কাছ থেকে কিনে সে অস্ত্রের তিনটি চালান দেশে আনে; যাতে ১০টি রিভলভার ছিল। সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ও রাজনৈতিক সন্ত্রাসে ব্যবহারের জন্য আনা এই অস্ত্র সুনামগঞ্জের স্বেচ্ছাসেবক দল ও যুবদলের দুই নেতার কাছে বিক্রি করে আরব আলী।

৫ সেপ্টেম্বর ঢাকার যাত্রাবাড়ী এলাকা থেকে আব্দুস শহীদ, দোলন মিয়া ও আনছার মিয়াকে অত্যাধুনিক তিনটি রিভলভারসহ গ্রেফতার করে কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট (সিটিটিসি)। এদের মধ্যে আনছার মিয়া সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলা যুবদল ও আব্দুস শহীদ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের রাজনীতিতে জড়িত। তাদের জিজ্ঞাসাবাদের সময় অস্ত্র চোরাচালানের হোতা আরব আলীর নাম বেরিয়ে আসে।

এই তিনজনকে গ্রেফতারের পর সিলেট সীমান্ত দিয়ে অবৈধ অস্ত্রের চালান আসার বিষয়টি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী জানতে পারে। অন্য সীমান্ত এলাকায় নজরদারি বৃদ্ধি হওয়ায় চোরাকারবারিরা নতুন এই রুট অস্ত্র আনার জন্য বেছে নেয়। গোয়াইনঘাট সীমান্ত দিয়ে আনা অত্যাধুনিক রিভলভারগুলো সুনামগঞ্জ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া হয়ে রাজধানীতে রাজনৈতিক ও পেশাদার সন্ত্রাসীদের হাতে পৌঁছে যায়। আরব আলীকে গ্রেফতারের পর এখন পুলিশ এই চক্রের অন্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা করছে।

গতকাল সকাল ১১টায় নিজের কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার ফরিদুজ্জামান বলেন, গোয়াইনঘাটের সোনারহাট সীমান্তে ভারতীয় খাসিয়া সম্প্রদায়ের এক ব্যক্তি এই অস্ত্রগুলো বাংলাদেশে সরবরাহ করে। সোনারহাটে সীমান্ত হাট বসার সুযোগে আরব আলী সবজির ব্যাগে করে অস্ত্রগুলো দেশে নিয়ে আসে। এরপর তা সুনামগঞ্জ হয়ে রাজধানীতে চলে যায়। এই অস্ত্রগুলো সিলেট অঞ্চলে বিক্রি বা ব্যবহূত হয়নি বলে জানান তিনি।

গোয়াইনঘাট থানার ওসি মো. আব্দুল আহাদ সমকালকে জানান, আরব আলীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গতকাল আদালতে উপস্থাপন করে তিন দিনের রিমান্ড আবেদন করা হলে বিচারক তা মঞ্জুর করেন।

এদিকে পুলিশ সুপার ফরিদুজ্জামান জানিয়েছেন, সিলেট সীমান্ত এলাকায় বিজিবির সঙ্গে সমন্বয় করে অবৈধ অস্ত্রের চোরাচালান বন্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।