আসামের এনআরসি নিয়ে আশঙ্কার কারণ নেই : ওবায়দুল কাদের

প্রকাশ: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জয়শঙ্কর সম্প্রতি বাংলাদেশ সফরে এসে বলে গেছেন, আসামের এনআরসি নিয়ে বাংলাদেশের আশঙ্কার কোনো কারণ নেই। বাংলাদেশ সেটা ধরেই অগ্রসর হচ্ছে।

গতকাল বুধবার সচিবালয়ে নিজ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে

আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। এ সময় তিনি মহাসড়কে টোল আদায় ও রংপুরে এরশাদের আসনের উপনির্বাচনের বিষয়েও কথা বলেন।

পর্যায়ক্রমে সব মহাসড়কই টোলের আওতায় আসবে : চার, ছয় ও আট লেনের মহাসড়কগুলোকে প্রথম ধাপে টোলের আওতায় আনার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সড়ক যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। সাংবাদিকদের তিনি বলেন, পর্যায়ক্রমে সব মহাসড়ককেই টোলের আওতায় আনা হবে। কোন গাড়ির টোল কত টাকা হবে, কোন রাস্তায় কত হবে- এসব একটা নিয়মের মধ্যে আনা হচ্ছে। এ নিয়ে মন্ত্রণালয় কাজ করছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, পৃথিবীর সব দেশেই সড়কে টোল আছে। কারণ সড়ক মেরামত করতে হয়, সংস্কার করতে হয়। টোল আরোপের ফলে অর্থনীতির ওপর নেতিবাচক প্রভাব পড়ার বিষয়ে তিনি বলেন, আগে যে রাস্তা আট ঘণ্টায় যাওয়া যেত, এখন তা সাড়ে তিন ঘণ্টায় যাওয়া যায়। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে অনেক সময়ের সাশ্রয় হচ্ছে। কাজেই কারও ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা নেই।

টোল আদায়ের এ উদ্যোগ বিষয়ে বিএনপির প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে ওবায়দুল কাদের বলেন, তারা কোনো চার লেনের রাস্তা করেনি। কাজেই তাদের এসব বিষয়ে কোনো অভিজ্ঞতা নেই। পদ্মা সেতুর টোল নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, সেতুর নির্মাণকাজ এগিয়ে চলছে। কিন্তু টোলের বিষয়টি নির্ধারণ হওয়ার আগেই কীভাবে আগাম কথা বলব?

ছাত্রলীগের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীই দেখভাল করছেন : ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটির বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী নিজেই দেখভাল করছেন। কমিটি গঠন করা সম্পূর্ণ প্রধানমন্ত্রীর এখতিয়ার। সংযোজন-বিয়োজনেরও এখতিয়ার তার। পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও যাচাই-বাছাই করেই তিনি ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচন করেছেন। দলের সভাপতির পক্ষে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে তিনি শুধু ঘোষণা দিয়েছেন। ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি, বিশ্ববিদ্যালয় ও ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নামও সভাপতি নিজেই নির্ধারণ করে দিয়েছিলেন।

এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ছাত্রলীগের আগাম কাউন্সিলের বিষয়ে এখনও কথা হয়নি। তবে দলের চারজনকে সংগঠনটি দেখাশোনার দায়িত্ব দিয়েছেন নেত্রী।

ছাত্রলীগের বিভিন্ন কার্যক্রমে ক্ষুব্ধ হয়ে প্রধানমন্ত্রী বিদ্যমান কমিটি ভেঙে দিতে বলেছেন- গণমাধ্যমে প্রচারিত এমন সংবাদের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে ওবায়দুল কাদের জানান, এ বিষয়ে তিনি কোনো মন্তব্য করবেন না।

রংপুরে নৌকার প্রার্থী আছে : রংপুর-৩ আসনের উপনির্বাচন নিয়ে জাতীয় পার্টি আওয়ামী লীগের সঙ্গে সমঝোতার চেষ্টা করছে- গণমাধ্যমে প্রকাশিত এমন খবর সম্পর্কে ওবায়দুল কাদের বলেন, জাতীয় পার্টি আসনটি চাইলে বাস্তবতার পরিপ্রেক্ষিতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। রংপুর নির্বাচনে সব দল অংশ নিচ্ছে। ছাড় দেওয়ার বিষয় এলে তখন তা দেখা যাবে। তবে আপাতত নৌকার প্রার্থী আছে।