মুরাদনগরে ভিডিও ভাইরাল ধর্ষণের ঘটনা ৫ লাখ টাকায় ধামাচাপার চেষ্টা

প্রকাশ: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯      

মুরাদনগর (কুমিল্লা) প্রতিনিধি

কুমিল্লার মুরাদনগরে চতুর্থ শ্রেণি পড়ূয়া এক শিশুকে ধর্ষণের ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে পড়েছে। ওই শিশুকে ধর্ষণ করে স্থানীয় ছিদ্দিকুর রহমান (৬৫)। উপজেলার রামচন্দ্রপুর উত্তর ইউনিয়নের গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গত শুক্রবার এ ঘটনা ঘটলেও স্থানীয় মাতবররা ধামাচাপা দিয়ে রাখেন। পরে ফেসবুকে ভিডিও ভাইরাল হলে জানাজানি হয়। এদিকে ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার জন্য স্থানীয় এক ইউপি সদস্যসহ মাতবররা ধর্ষক ছিদ্দিকুর রহমানের কাছ থেকে পাঁচ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে ভাগবাটোয়ারা করে নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, গত শুক্রবার বিকেলে ওই শিশুকে ২০ টাকা দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে বাড়ির পাশের একটি জঙ্গলে নিয়ে ছিদ্দিকুর রহমান ধর্ষণ করে। ঘটনাটি দেখে অজ্ঞাত স্থান থেকে কেউ ধর্ষণের ভিডিও করে। ফেসবুকে এ ভিডিও দেখে ধর্ষক

ছিদ্দিকুর রহমান গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে বাঙ্গরা বাজার থানার ওসি মিজানুর রহমান এবং এসআই নুরুল আলম ওই গ্রামে গিয়ে ধর্ষিতকে উদ্ধার করে থানায় এনে লিখিত অভিযোগ গ্রহণ করেন। পরে ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে মামলা করেন।

ধর্ষিতার ভাই জানান, ঘটনার পর মাতবররা আমাদের কিছু টাকা দিতে চেয়েছিলেন; কিন্তু আমরা তা নিইনি। আমরা ধর্ষকের উপযুক্ত শাস্তি দাবি করছি।

এ বিষয়ে বাঙ্গরা বাজার থানার ওসি মিজানুর রহমান বলেন, মাতবররা বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন; কিন্তু খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ভিকটিমকে উদ্ধার করে থানায় এনে অভিযোগ গ্রহণ করেছি। তিনি বলেন, কোনো মাতবর এর সঙ্গে জড়িত থাকলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। লম্পট ধর্ষক ছিদ্দিকুর রহমানকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

এদিকে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ ওঠার পর অভিযুক্ত মাতবরদের কাউকে এলাকায় পাওয়া যায়নি। তদন্তের স্বার্থে তাদের নামও বলতে চাননি ওসি মিজানুর রহমান।