জিয়া চ্যারিটেবল মামলা

খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন ফেরত নিলেন আইনজীবীরা

প্রকাশ: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজা পাওয়া বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন ফেরত নিয়েছেন তার আইনজীবীরা। গতকাল বুধবার বিচারপতি ফরিদ আহমেদ ও বিচারপতি এ এস এম আবদুল মোবিনের হাইকোর্টের অবকাশকালীন বেঞ্চে আবেদনটি শুনানির জন্য উপস্থাপন করা হয়। কিন্তু আদালত এ আবেদন নিয়ে আপিল বিভাগে যাওয়ার পরামর্শ দেন। শারীরিক অবস্থা, বয়স, সামাজিক

অবস্থান, অপরাধের ধরন- সবকিছু মিলিয়ে খালেদা জিয়া 'জামিন পেতে পারেন' এ যুক্তি দেখিয়ে ফের এ জামিন আবেদন করেন তার আইনজীবীরা। অপরাধের গুরুত্ব, সংশ্নিষ্ট আইনের সর্বোচ্চ সাজা এবং বিচারিক আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়াসহ অন্য আসামিদের করা আপিল শুনানির প্রস্তুতি- এ তিনটি বিষয় বিবেচনায় নিয়ে এর আগে গত ৩১ জুলাই হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ খালেদা জিয়ার জামিনের আবেদন খারিজ করে রায় দেন। কিন্তু তার আইনজীবীরা সে খারিজ আদেশের বিরুদ্ধে আপিল না করে ৩ সেপ্টেম্বর নতুন করে হাইকোর্টে আবেদন করেন। তবে ফের জামিন আবেদন করার বিষয়টিকে 'নজিরবিহীন' আখ্যায়িত করেন দুদকের আইনজীবী খুরশিদ আলম খান।

গতকাল হাইকোর্টের অবকাশকালীন বেঞ্চের জ্যেষ্ঠ বিচারক বলেন, এর আগে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ শুনানির পর সিদ্ধান্ত দেওয়ায় বিষয়টি নিয়ে এখন আপিল বিভাগে যেতে পারেন। এ সময় খালেদার আইনজীবী জয়নুল আবেদীন বলেন, এর আগে হাইকোর্টের অন্য একটি বেঞ্চে শুনানি হলেও আপনাদের শুনতে কোনো বাধা নেই। এর পরও আদালত আবেদনের ওপর শুনানি অপারগতা প্রকাশ করেন। এ পর্যায়ে খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা জামিন আবেদন ফেরত (টেক ব্যাক) নেন।

এ সময় অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও দুর্নীতি দমন কমিশনের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান আদালতে ছিলেন। পরে দুদকের আইনজীবী সাংবাদিকদের বলেন, আদালত নিজেই সন্তুষ্ট হতে পারেননি। তাই শুনানি হয়নি। কারণ একটি বেঞ্চ আবেদনটি খারিজ করেছেন। এর বিরুদ্ধে তারা আপিল বিভাগে যেতে পারেন। কিন্তু সেই একই আবেদন আবার নতুন করে হাইকোর্ট শুনতে পারেন না। এমন প্রেক্ষাপটে আবেদনটি খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা ফেরত নিয়েছেন।