ইউএনআইর প্রতিবেদন বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘস্থায়ী নারী সরকারপ্রধান শেখ হাসিনা

প্রকাশ: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯      

সমকাল ডেস্ক

বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘস্থায়ী নারী সরকারপ্রধানের মর্যাদায় অভিষিক্ত হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ-সংক্রান্ত একটি তালিকায় তিনি বিশ্বের খ্যাতনামা সরকারপ্রধান ভারতের ইন্দিরা গান্ধী, ব্রিটেনের মার্গারেট থ্যাচার ও শ্রীলংকার চন্দ্রিকা কুমারাতুঙ্গাকে পেছনে ফেলেছেন।

উইকিলিকসের বরাতে ইউনাইটেড নিউজ অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে (ইউএনআই) বলা হয়, শেখ হাসিনা এখন নারী পুনর্জাগরণের প্রতীক।

প্রতিবেদনে বলা হয়, সেইন্ট লুসিয়ার গভর্নর জেনারেল ডেম পার্লে লুইসি ১৯৯৭ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত ২০ বছরের বেশি তার দেশ শাসন করলেও তিনি বিশ্বরাজনীতিতে পরিচিত মুখ ছিলেন না। আইসল্যান্ডের সরকারপ্রধান ভিগডিস ফিনভোগাদতি ১৯৮০ থেকে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় ছিলেন। তিনিও বিশ্ব রাজনীতিতে বিখ্যাত ছিলেন না। এছাড়া ডোমেনিকার প্রধানমন্ত্রী ডেম উজেনিন

প্রায় ১৫ বছর এবং আয়ারল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট ম্যারি ম্যাকঅ্যালিস প্রায় ১৪ বছর ক্ষমতায় ছিলেন।

জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মের্কেল বর্তমানে বিশ্বের অন্যতম নারী সরকারপ্রধান। ২০০৫ সালের নভেম্বর থেকে তিনি ক্ষমতায় রয়েছেন।

অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টানা তৃতীয় মেয়াদসহ চারবার প্রধানমন্ত্রী পদে আসীন হয়েছেন। প্রথম তিন মেয়াদে ১৫ বছর ক্ষমতায় থাকার পর গত জানুয়ারি থেকে চতুর্থ মেয়াদে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

এক্ষেত্রে শেখ হাসিনা মার্গারেট থ্যাচারকে ছাড়িয়ে গেছেন। থ্যাচার ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী পদে ছিলেন ১৯৭৯ সালের মে থেকে ১৯৯০ সালের নভেম্বর পর্যন্ত, ১১ বছর ২০৮ দিন। ইন্দিরা গান্ধী ক্ষমতায় ছিলেন ১৫ বছরের কিছু বেশি সময়। চন্দ্রিকা কুমারাতুঙ্গা ক্ষমতায় ছিলেন ১১ বছর। এই চারজনই বিশ্ব রাজনীতিতে সুপরিচিত।

ইউএনআই জানায়, শেখ হাসিনা, মের্কেল, থ্যাচার ও ইন্দিরা গান্ধী নতুন পথের দিশা দিয়েছিলেন এবং নিজ নিজ দেশকে দিয়েছিলেন নতুন সম্ভাবনার সন্ধান। তবে চতুর্থবার প্রধানমন্ত্রী পদে ক্ষমতাগ্রহণ করে শেখ হাসিনা অন্য সবাইকে ছাড়িয়ে গেছেন।