করোনা তাণ্ডব বেশিদিন থাকবে না

নোবেলজয়ী বিজ্ঞানীর পূর্বাভাস

প্রকাশ: ২৬ মার্চ ২০২০

সমকাল ডেস্ক

নোবেলজয়ী জীববিজ্ঞানী মাইকেল লেভিট করোনাভাইরাস সংক্রমণ নিয়ে আশার বাণী শুনিয়েছেন। এর আগে এ ভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ে একাধিক নির্ভুল পূর্বাভাস দেওয়া লেভিট বলেছেন, কভিড-১৯ মাসের পর মাস বা বছরের পর বছর ধরে ছড়িয়ে পড়বে না। এতে লাখ লাখ মানুষের মৃত্যুও ঘটবে না।

চীনে করোনাভাইরাস নিয়ে একাধিক নির্ভুল পূর্বাভাস দিয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও ২০১৩ সালে রসায়নে নোবেল পুরস্কারজয়ী এ বিজ্ঞানী। লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমসকে এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, 'সবার আগে আমাদের  ভীতি দূর করতে হবে। তাহলে সব ঠিকঠাক হয়ে যাবে।'

তিনি বলেন, করোনা নিয়ে মহাবিপর্যয়ের যে ধরনের সতর্কবার্তা দেওয়া হচ্ছে, তার তথ্য তা সমর্থন করছে না। যুক্তরাষ্ট্রে কবে করোনার সংক্রমণ শেষ হবে, সেটার নির্দিষ্ট তারিখ তিনি এখনই বলতে পারছেন না। তবে আক্রান্তের হার কমার প্রমাণ রয়েছে।

অন্য স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা পূর্বাভাস দেওয়ার আগেই লেভিট চীনের মহামারি সম্পর্কে পূর্বাভাস দিয়ে বলেছিলেন, করোনাভাইরাস মহামারি সর্বনাশা বিপর্যয় ডেকে আনতে পারে। মৃত্যুর মিছিল যখন বড় হচ্ছিল ক্রমাগত, তারই একপর্যায়ে তিনি জানান এবার মৃত্যুহার কমে আসতে শুরু করবে। সেই ভবিষ্যদ্বাণী সত্য হয়েছিল। তিনি বলেছিলেন, মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ার হার আগামী সপ্তাহ থেকে কমে যাবে। তার দেওয়া পূর্বাভাস অনেকটাই ফলে গেছে। ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি সময়ে তিনি বলেন, চীনে ৮০ হাজার আক্রান্ত হবে এবং ৩ হাজার ২৫০ জনের মতো মারা যেতে পারে। তার বক্তব্য প্রায় নির্ভুল প্রমাণিত হয়েছে।

লেভিট বলেন, এ ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সামাজিক দূরত্ব রক্ষা করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তবে তিনি বলেন, কিছু লোকের এমনিতেই এ রোগ হবে না। উদাহরণ হিসেবে তিনি বলেন, করোনার উৎসস্থল চীনের উহানে সবারই তো সংক্রমিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সেখানে আক্রান্ত হয়েছে জনসংখ্যার মাত্র ৩ শতাংশ। এমনকি ডায়মন্ড প্রিন্সেস প্রমোদতরীতে আক্রান্তের সংখ্যাও ২০ শতাংশের বেশি নয়। এতে বোঝা যায়, সবারই করোনাভাইরাস হবে না।

লেভিট ৭৮টি দেশের পরিসংখ্যান বিশ্নেষণ করে বলেছেন, সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লেও এ বৃদ্ধির হার কমতে শুরু করেছে। তিনি বলেছেন, 'সব মিলে ধারণা করা যাচ্ছে, আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে সংক্রমণের হার ব্যাপকভাবে কমে আসতে শুরু করবে।'