রাজধানীর মালিবাগে অসুস্থ বৃদ্ধা বিলকিস বেগমকে নির্মম নির্যাতন করে টাকা ও স্বর্ণালংকার লুটের ঘটনায় অভিযুক্ত গৃহকর্মী রেখা আকতারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল থানার কাশিপুরের চিকন মাটিয়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে লুণ্ঠিত টাকা ও স্বর্ণালংকার উদ্ধার করে পুলিশ। এর আগে রেখার স্বামী এরশাদ আলীকে রাজধানীর উত্তর বাসাবো এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ঢাকা মহানগর পুলিশের গণমাধ্যম ও জনসংযোগ শাখার উপ-কমিশনার (অতিরিক্ত ডিআইজি হিসেবে পদোন্নতিপ্রাপ্ত) ওয়ালিদ হোসেন সমকালকে বলেন, ওই ঘটনায় শাহজাহানপুর থানায় একটি মামলা হয়। সেটি তদন্তের এক পর্যায়ে আসামির অবস্থান সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে অভিযান চালায় পুলিশ। গ্রেপ্তারের পর সন্ধ্যায় রেখাকে ঢাকায় নিয়ে আসা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার ব্যাপারে বিস্তারিত জানা যাবে।

পুলিশ জানায়, গত ১৭ জানুয়ারি মালিবাগের বাসায় বিলকিস বেগমকে রেখে ব্যক্তিগত কাজে বরিশালে যান তার মেয়ে। তখন বৃদ্ধার দেখাশোনার দায়িত্বে ছিল গৃহকর্মী রেখা। সে এক বছর ধরে ওই বাসায় কাজ করে আসছিল। ১৮ জানুয়ারি সকালে বিলকিসের অপর মেয়ে ব্যাংকে গেলে ভয়ংকর হয়ে ওঠে গৃহকর্মী। সে বৃদ্ধাকে একা পেয়ে রড দিয়ে বেধড়ক পেটায়। এর পর সে ওই বাসা থেকে দুই লাখ টাকা, সাত ভরি ওজনের তিনটি স্বর্ণের চেইন, ছয় ভরি ওজনের চার জোড়া স্বর্ণের চুড়ি, তিন ভরি ওজনের স্বর্ণের ব্রেসলেট, ছয় ভরি ওজনের ছয়টি স্বর্ণের আংটি, দুই ভরি ওজনের চার জোড়া দুল, একটি স্যামসাং এলইডি টিভিসহ মোট ২০ লাখ ৭৮ হাজার টাকার মালপত্র লুট করে। এ সময় সে বৃদ্ধার শোবার ঘর বাইরে থেকে তালাবদ্ধ করে যায়। পরে তার ছেলে চিৎকার শুনে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সবকিছু এলোমেলো দেখতে পান। তালা খুলে তিনি বৃদ্ধাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করেন।



তদন্তসংশ্নিষ্টরা জানান, সম্প্রতি গার্মেন্ট কর্মী এরশাদের সঙ্গে রেখার বিয়ে হয়। এটি এরশাদের দ্বিতীয় বিয়ে। বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই সে স্ত্রীকে টাকার জন্য চাপ দিতে থাকে। বাধ্য হয়ে রেখা তাকে ৪০ হাজার টাকা সংগ্রহ করে দেয়। তার পরও মোটা অঙ্কের টাকার জন্য চাপ দিয়ে আসছিল এরশাদ। তার চাপ ও প্ররোচনায় এক পর্যায়ে রেখা গৃহকর্ত্রীকে হত্যাচেষ্টা ও টাকা-গহনা লুট করে। ওই ঘটনার দৃশ্য ধরা পড়ে সিসিটিভি ক্যামেরায়। সেই ফুটেজে দেখা যায়, বৃদ্ধার হাত-পা টিপে দেওয়ার এক পর্যায়ে হঠাৎ ভয়ংকর হয়ে ওঠে রেখা। সে বিলকিসকে মারধর শুরু করে। রড দিয়ে পিটিয়ে তাকে রক্তাক্ত করে। বৃদ্ধা মারধর থেকে বাঁচতে অনেক মিনতি করলেও রেখার মন গলেনি। নির্মম নির্যাতনের দৃশ্য ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে।







মন্তব্য করুন