শব্দদূষণের জন্য দায়ী হাইড্রোলিক হর্নের ব্যবহার বন্ধ এবং রাজধানীর কয়েকটি রাস্তায় রাতের বেলায় তদারকিতে নির্দেশনার বিষয়ে কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, তা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট। আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে বিআরটিএর চেয়ারম্যানসহ সংশ্নিষ্ট ছয়জনকে হলফনামা আকারে এ-সংক্রান্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। এক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারপতি গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুর ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন। পরবর্তী আদেশের জন্য ৮ মার্চ দিন ধার্য রাখা হয়েছে।

আদালতে আবেদনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। তিনি জানান, হাইড্রোলিক হর্ন বন্ধে বিবাদীদের নিষ্ফ্ক্রিয়তা চ্যালেঞ্জ করে তা বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের পক্ষে জনস্বার্থে রিটটি করা হয়। এ রিটের শুনানি নিয়ে ২০১৭ সালে হাইকোর্ট রুলসহ নির্দেশনা দেন।

ওই সব নির্দেশনার পর তৎপর হওয়ায় শব্দদূষণ অনেকটা নিয়ন্ত্রণ হয়। কিন্তু পরে ফের শব্দদূষণ বেড়ে যায়। তাই এ বিষয়ে ফের আদালতে আবেদন করায় যুগ্ম কমিশনার (ট্রাফিক), বিআরটিএ চেয়ারম্যান, উপকমিশনার (ট্রাফিক) উত্তর, দক্ষিণ, পূর্ব ও পশ্চিমকে দুই সপ্তাহের মধ্যে তাদের পদক্ষেপের বিষয়ে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

মন্তব্য করুন