ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে অক্সফোর্ড ও অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি করোনাভাইরাসের টিকা 'কোভিশিল্ড' কেনার অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয়-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। এই কোম্পানি থেকে তিন কোটি ডোজ টিকা এক হাজার ২৭১ কোটি ৫৫ লাখ টাকায় কেনা হবে। এতে প্রতি ডোজ টিকা কিনতে ব্যয় হবে ৪২৩ টাকা ৮৫ পয়সা বা পাঁচ মার্কিন ডলার।

গতকাল বৃহস্পতিবার অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ক্রয়-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটিতে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের এ প্রস্তাবসহ মোট আটটি প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। কমিটির বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী এ তথ্য জানান।

সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে টিকা কেনার বিষয়ে আগেই চুক্তি হয়েছে। সরকারের সঙ্গে বাংলাদেশের বেক্সিমকো ফার্মা ও সেরাম ইনস্টিটিউট চুক্তি করেছে। ইতোমধ্যে টিকা বাবদ অগ্রিম ৬০০ কোটি টাকা পরিশোধ করেছে সরকার। ছয় মাস পরপর প্রতি চালানে ৫০ লাখ ডোজ করে এই টিকা সরবরাহ করার কথা। প্রথম চালান শিগগিরই পাওয়া যাবে বলে আশা করছে সরকার। এর মাধ্যমে দেড় কোটি মানুষকে টিকা দেওয়া হবে। সাংবাদিকরা অর্থমন্ত্রীর কাছে জানতে চেয়েছিলেন প্রতি ডোজ টিকা কত দামে আমদানি করা হচ্ছে- তার জবাবে মুস্তফা কামাল স্বাস্থ্যসেবা বিভাগে খোঁজ নেওয়ার পরামর্শ দেন।

সাংবাদিকদের অপর প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, প্রথম দফাতেই করোনাভাইরাসের টিকা নিতে চান

তিনি। সরকার যে টিকা জনগণকে দেবে, সেই টিকাই নেবেন। তিনি বলেন, 'আমি সবার আগে টিকা নেব। কারণ বয়স। সরকার যে টিকা দেবে, সেই টিকাই নেব।'

এদিকে গতকাল ভারত সরকারের উপহার হিসেবে দেওয়া অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি টিকার ২০ লাখ ডোজ দেশে এসেছে। ঢাকায় নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেকের হাতে এ টিকা তুলে দেন। শিগগির সরকার কাজের ধরন ও বয়সের পরিপ্রেক্ষিতে অগ্রাধিকারভিত্তিতে জনগণকে টিকা দেবে। চলতি মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে রাজধানীর চারটি হাসপাতালে টিকা দেওয়া শুরু হতে পারে।

এ ছাড়া ক্রয়-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশনের (বিসিআইসি) ৬০ হাজার

টন ইউরিয়া সার আমদানির অনুমোদন দিয়েছে। কাফকো থেকে ১৩২ কোটি ৬০ লাখ টাকা ব্যয়ে এ সার আমদানি করা হবে। এ ছাড়া বিসিআইসির সৌদি আরবের বেসিক ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশন থেকে ৫৬ কোটি টাকায় ২৫ হাজার ইউরিয়া সার কেনার প্রস্তাবও অনুমোদন করেছে কমিটি।

সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের আমিনবাজার, সালেহপুর ও নয়ারহাটে তিনটি সেতু নির্মাণ প্রকল্পের ২৪৪ কোটি টাকার ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন করা হয়েছে। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) তিনটি মডার্ন ইনল্যান্ড প্যাসেঞ্জার ভ্যাসেল কেনার প্রস্তাব অনুমোদন করা হয়েছে। থ্রি অ্যাঙ্গেল মেরিন লিমিটেড থেকে ১৪২ কোটি ৫০ লাখ টাকায় এই জাহাজ কেনা হবে। একই সঙ্গে বিআইডব্লিউটিসির আটটি কোস্টাল সি ট্রাক কেনার প্রস্তাবও অনুমোদন পেয়েছে। আনন্দ শিপইয়ার্ড ও থ্রি অ্যাঙ্গেল মেরিন লিমিটেড থেকে ১৩২ কোটি টাকায় এসব ট্রাক কেনা হবে।



মন্তব্য করুন