বরগুনার পাথরঘাটায় নৌকা ঠেকাতে কালো টাকা ছড়ানোর অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র আনোয়ার হোসেন আকন। গতকাল বৃহস্পতিবার পাথরঘাটা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে তিনি এ অভিযোগ করেন।

লিখিত বক্তব্যে আনোয়ার হোসেন আকন বলেন, তাকে ঠেকাতে অন্য চার প্রার্থী জোট বেঁধেছে। এ জোটের নেতৃত্ব দিচ্ছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী জামায়াত নেতা মাহবুবুর রহমান খান। তিনি বলেন, প্রতীক বরাদ্দের পর থেকে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল ও জামায়াত সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহবুবুর রহমান খান কালো টাকা ছড়িয়ে ভোটারদের প্রভাবিত করছেন। তাদের নেতাকর্মীদের হামলায় দুলাল হাওলাদার ও জসিম হাওলাদার নামের দু'জন নৌকার কর্মী আহত হয়ে এখন বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তিনি বলেন, এই নির্বাচনে যারা আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন, তাদের নৌকার পক্ষে কাজ করার জন্য বরগুনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমন আহ্বান করলে তার

বিরুদ্ধেও ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। বুধবার এমপিকে জড়িয়ে একটি পত্রিকায় নানা প্রপাগান্ডা ছড়িয়েছে। তিনি এর প্রতিবাদ জানান।

পাথরঘাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুর রহমান জুয়েল জানান, মোবাইল ফোন প্রতীক প্রার্থী মাহবুবুর রহমান খান জামায়াতের নেতা। তাকে বিজয়ী করতে সারাদেশের জামায়াত নেতারা অর্থ জোগান দিচ্ছেন। তিনি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ও বিএনপির প্রার্থীদের নিয়ে ঐক্য গঠন করেছেন।

মাহবুবুর রহমান খান জানান, এই সংবাদ সম্মেলন নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর কূটকৌশল। তাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র তো দূরের কথা, আমাদের তারা ঘর থেকেই নামতে দিচ্ছে না। আমি কোনো জামায়াত নেতা নই, ঠিকাদারি ব্যবসা করি। ৩০ বছর আগে শিবির করতাম।

মন্তব্য করুন