দেশে চিনির দামে অস্থিরতা শুরু হয়েছে। আমদানিনির্ভর পণ্যটির দাম পাইকারি বাজারে গত দুই সপ্তাহ ধরে বেশ ওঠানামা করছে। গত সপ্তাহে খুচরায় কেজিতে ৫ টাকা বেড়েছে। এ ছাড়া ভোজ্যতেলের দাম বেড়েই চলছে। এদিকে বাজারে পেঁয়াজের দাম কমলেও মৌসুমের শেষ সময়ে রসুন ও আদার দাম কিছুটা বেড়েছে।

আন্তর্জাতিক বাজারে দাম বাড়ায় দেশের চিনি পরিশোধনকারী কোম্পানিগুলো পণ্যটির দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। পাইকারি বাজারে পণ্যটির দাম বস্তাপ্রতি ১০০ টাকা বেড়েছে। ৫০ কেজির প্রতি বস্তা ৩ হাজার ১০০ টাকা থেকে ৩ হাজার ২ টাকায় উঠেছে। তবে গত সপ্তাহে পাইকারি বাজারে এই দর প্রতিদিন ২০ থেকে ৫০ টাকা পর্যন্ত ওঠানামার মধ্যে ছিল বলে জানান কারওয়ান বাজারের পাইকারি ব্যবসায়ীরা। দামের এই অস্থিরতায় খুচরা বাজারে কেজিপ্রতি ৫ টাকা বেড়েছে। এখন প্রতি কেজি চিনি কিনতে গুনতে হচ্ছে ৬৮ থেকে ৭০ টাকা।

পরিশোধনকারী কোম্পানির ওপর চিনির বাজার নির্ভর করছে বলে জানান কারওয়ান বাজারের পাইকারি ব্যবসায়ী আবুল কাশেম। তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারদর ওঠানামার সঙ্গে সঙ্গে দেশের বাজারেও ওঠানামা করছে। সম্প্রতি মিলগেটে প্রতি কেজি চিনির দাম ছিল ৬০ টাকা। তখন পরিবেশক পর্যায়ে প্রতি কেজি চিনি বিক্রি হয় ৫৯ টাকা। এর পরেই মিলগেটে চিনির দাম বাড়িয়ে ৬২ টাকা করা হয়েছে। এ কারণে পাইকারিতে দাম বেড়েছে।

আগে আন্তর্জাতিক বাজারে প্রতি টন অপরিশোধিত চিনির দাম ৩০০ থেকে ৩১০ ডলার ছিল। এখন তা বেড়ে ৩৬০ থেকে ৩৬৫ ডলার হয়েছে। আন্তর্জাতিক বাজারের পণ্যের দরের তথ্যভিত্তিক নিউজ পোর্টাল ইনডেক্স মুন্ডি ডটকম জানায়, গত দুই মাসে ১০ শতাংশের বেশি দাম বেড়েছে চিনির।

রাষ্ট্রায়ত্ত বিপণন সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) তথ্য অনুযায়ী, রাজধানীর খুচরা বাজারে প্রতি কেজি চিনি ৬৫ থেকে ৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গত দুই সপ্তাহে দাম ৬ শতাংশ বেড়েছে। বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম লিটারে ১০ টাকা বেড়ে ১৩০ থেকে ১৪০ টাকা হয়েছে। সপ্তাহের ব্যবধানে পণ্যটির দাম ৮ শতাংশ বেড়েছে। তবে খোলা সয়াবিন তেলের দাম লিটারে ৩ থেকে ৪ টাকা কমে ১১০ থেকে ১১২ টাকা হয়েছে। আর পামতেলের দামও একই হারে কমে ৯৭ থেকে ১০২ টাকা

হয়েছে। দেশি রসুনের দাম কেজিতে ১০ থেকে ২০ টাকা পর্যন্ত বেড়ে ১১০ থেকে ১২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। দেশি আদার দামও কেজিতে ১০ টাকা বেড়ে ৯০ থেকে ১১০ টাকা হয়েছে। তবে পেঁয়াজের দাম কমে আমদানি করা চীন ও তুরস্কের পেঁয়াজ ২০ থেকে ২৫ টাকা, ভারতীয় পেঁয়াজ ৩০ থেকে ৩৫ টাকা ও দেশি পেঁয়াজ ৩০ থেকে ৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

বাজারে এখন কম দামে বিক্রি হচ্ছে সবজি। বেশিরভাগ সবজির দাম ১৫ থেকে ৩০ টাকায় কেজিতে নেমেছে। তবে সরকারি ও বেসরকারিভাবে চাল আমদনি শুরু হলেও বাজারে তেমন প্রভাব নেই। খুচরায় এখনও আগের দামেই বিক্রি হচ্ছে। পাইকারি ও বড় বাজারগুলোতে চালের দাম কেজিতে দুই-এক টাকা কমেছে। এখন প্রতি কেজি সরু চাল ৬০ থেকে ৬৪ টাকা, মাঝারি সরু চাল ৫২ থেকে ৫৬ টাকা ও মোটা চাল ৪৬ থেকে ৪৮ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।





মন্তব্য করুন