প্রতিদ্বন্দ্বিতায় প্রতিপক্ষের কাছে হেরে গেলে মানুষের মনে প্রতিহিংসা দেখা দেয়। বন্ধুত্ব ভুলে গিয়ে ক্ষতির চেষ্টা করে অনেকেই। ব্যতিক্রম খুব কমই দেখা যায়। আগামী পৌরসভা নির্বাচনে নিজে মনোনয়নবঞ্চিত হয়েও বন্ধুর জন্য ভোট চাইছেন জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ও জেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি এস এম মনিরুজ্জামান দুদু।

আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি চতুর্থ ধাপে নেত্রকোনা পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ওই নির্বাচনে বিএনপি থেকে মনোনয়ন চেয়েছিলেন জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ও জেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি এস এম মনিরুজ্জামান দুদু। এ ছাড়া জেলা যুবদলের সহসভাপতি, জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি, সাবেক সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আশারাফ উদ্দিন খানের ছেলে আবদুল্লাহ আল মামুন খান রনি ও পৌর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুল কদ্দুসের ছেলে রাসেল মাহমুদও মনোনয়ন চান। দলীয় সিদ্ধান্তে মনোনয়ন দেওয়া হয় জেলা যুবদলের সহসভাপতি আবদুল্লাহ আল মামুন খান রনিকে। মনোনয়ন পেয়ে নেতাকর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে নির্বাচনী মাঠে কাজ করছেন রনি খান। মনোনয়নবঞ্চিত হয়েও পিছিয়ে যাননি এস এম মনিরুজ্জামান দুদু। আগামী নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী রনি খানের জন্য কাজ করছেন তিনি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে স্ট্যাটাস দিয়ে ও পৌর এলাকায় সাধারণ ভোটারদের কাছে দলীয় প্রার্থীর জন্য ভোট চাইছেন তিনি। বিষয়টি দলীয় নেতাকর্মীসহ সাধারণ ভোটারদের মধ্যে বেশ সাড়া জাগিয়েছে।

নেত্রকোনা জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক এস এম মনিরুজ্জামান দুদু বলেন, দল থেকে আমাকে মনোনয়ন দেওয়া হয়নি। তাই বলে আমি বসে থাকতে পারি না। আমার বন্ধু তো মনোনয়ন পেয়েছেন। আগামী নির্বাচনে আমার বন্ধু আবদুল্লাহ আল মামুন খান রনির জন্য ভোটারদের কাছে ভোট চাইছি।

নেত্রকোনা জেলা যুবদলের সহসভাপতি ও বিএনপি দলীয় প্রার্থী আবদুল্লাহ আল মামুন খান রনি বলেন, দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে নিয়ে অনেকেই আমার জন্য কাজ করছেন। সাধারণ মানুষের মধ্যে সাড়া জেগেছে। নির্বাচনে সুষ্ঠুভাবে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হলে ভালোই হবে আশা করছি।

মন্তব্য করুন