রাজধানীর দারুসসালাম থেকে বন্যপ্রাণী পাচারকারী চক্রের সাত সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। গত শুক্রবার সন্ধ্যায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে একটি তক্ষক উদ্ধার করা হয়। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত তাদের ৫০ হাজার টাকা জরিমানা এবং অনাদায়ে এক মাসের কারাদণ্ড দেন। জরিমানা পরিশোধে ব্যর্থ হওয়ায় তাদের কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

দণ্ডিতরা হলো- আব্দুল্লাহ আল মামুন, মো. সজিব, সাইফুল ইসলাম, ইউসুফ, শাহাবুদ্দিন, আনিসুর রহমান ও জাকির হোসেন।

র‌্যাব-৪ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) এএসপি জিয়াউর রহমান চৌধুরী জানান, র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আনিসুর রহমান ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জমির উদ্দিন আহমেদের নেতৃত্বে এ অভিযান চালানো হয়। এতে সহযোগিতা করেন বন্যপ্রাণী অপরাধ নিয়ন্ত্রণ বিভাগের পরিদর্শক নারগিস সুলতানা লিজা। দারুস সালামের মাজার রোড এলাকায় অভিযানে উদ্ধার করা তক্ষকটি পরে মিরপুরের জাতীয় উদ্ভিদ উদ্যানে ছেড়ে দেওয়া হয়। গ্রেপ্তার সাতজনকে বিলুপ্তপ্রায় বন্যপ্রাণী তক্ষক সংরক্ষণ ও পাচারের অপরাধে দণ্ড দেওয়া হয়েছে। এর আগে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তাররা জানায়, দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে  তক্ষকসহ অন্যান্য বিলুপ্তপ্রায় বন্যপ্রাণী সংগ্রহ করে চড়া দামে বিক্রি করে আসছিল তারা।

র‌্যাব জানায়, বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ ও পাচাররোধে র‌্যাবের এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

মন্তব্য করুন