দেশে টিকা উৎপাদন গবেষণা সহজ হবে

মন্ত্রিসভার বৈঠকে চুক্তি অনুসমর্থনের প্রস্তাবে সম্মতি

প্রকাশ: ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১

সমকাল প্রতিবেদক

দেশে টিকা উৎপাদন গবেষণা সহজ হবে

ছবি: ফাইল

দেশে নতুন টিকা উৎপাদন আরও সহজ হচ্ছে। এজন্য আন্তর্জাতিক ভ্যাকসিন ইনস্টিটিউট (আইভিআই) প্রতিষ্ঠার চুক্তি অনুসমর্থনের প্রস্তাব অনুমোদন করেছে সরকার। এর ফলে এখন দেশে টিকা উৎপাদন এবং এ সম্পর্কিত গবেষণায় প্রশিক্ষণ ও কারিগরি সহায়তা পাওয়া যাবে। দেশের প্রতিষ্ঠানগুলোর সক্ষমতা বাড়বে। টিকা উৎপাদন, প্রয়োগ ও মান নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা আরও যুগোপযোগী হবে। পাশাপাশি কম দামে টিকা পাওয়া যাবে। গতকাল সোমবার গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার ভার্চুয়াল বৈঠকে চুক্তিটি অনুসমর্থনের প্রস্তাবে সম্মতি দেওয়া হয়। বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, ১৯৯৬ সালের ২৮ অক্টোবর ইউনাইটেড ন্যাশনস ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রামের উদ্যোগে দক্ষিণ কোরিয়ার সিউলে আন্তর্জাতিক ভ্যাকসিন ইনস্টিটিউটের চুক্তি হয়েছিল। সেই চুক্তিতে বাংলাদেশ স্বাক্ষরকারী দেশ। তবে পূর্ণ সদস্যের জন্য বাংলাদেশের মন্ত্রিসভার অনুমোদনের দরকার ছিল, সেটিই হয়েছে।

বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেকের টিকা তৈরির বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব সচিব বলেন, তারা এখনও ট্রায়াল শেষ করেনি। তারা যদি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রটোকল মেনে করতে পারে তাহলে সমস্যা নেই।

আর্কাইভের ক্ষতি করলে কারাদণ্ড :আর্কাইভের ক্ষতি হলে সর্বোচ্চ পাঁচ বছরের জেল বা সর্বোচ্চ এক লাখ টাকা জরিমানার বিধান রেখে 'বাংলাদেশ জাতীয় আর্কাইভস আইন, ২০২১'-এর খসড়ায় চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, জাতীয় আর্কাইভস সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য ১৯৮৩ সালের একটি আইন ছিল, হাইকোর্টের রায়ের পরিপ্রেক্ষিতে যেহেতু এটি আইনে পরিণত করতে হবে, সেহেতু এটি সংশোধনী আনা হয়েছে। আর্কাইভের ক্ষতিসাধন করলে এবং অন্যান্য ক্ষতিসাধনের জন্য এক থেকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড বা ১০ হাজার থেকে সর্বোচ্চ এক লাখ টাকা অর্থদণ্ড রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, জাতীয় আর্কাইভস পরিচালনায় একটি উপদেষ্টা পরিষদ থাকবে। একজন মহাপরিচালক থাকবেন। অধ্যাদেশে মহাপরিচালক ছিল না। খসড়া আইনে রেকর্ড বিনষ্ট করার যে বিধান ছিল তা বাদ দেওয়া হয়েছে। আর্কাইভসের সফট কপি নিয়ে যত রেকর্ড থাকবে কালিয়াকৈরের ডাটা সেন্টারে লঞ্চ করতে হবে। দেশের সব রেকর্ডরুমে যা আছে সবগুলোকে একটি নির্দিষ্ট সময় পরে আর্কাইভে দিয়ে দিতে হবে।

২০ বছর পর্যন্ত পেটেন্ট রাইট:পেটেন্ট (স্বত্ব) না মানলে শাস্তির পরিমাণ বাড়িয়ে 'বাংলাদেশ পেটেন্ট আইন, ২০২১' এর খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন পেয়েছে। এছাড়া 'বাংলাদেশ শিল্প-নকশা আইন, ২০২১' এর খসড়ায়ও নীতিগত অনুমোদন মিলেছে। এই আইনের অধীনে শিল্প-নকশা নিবন্ধন সংক্রান্ত কার্যক্রম সম্পন্ন হবে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, বাণিজ্য সংস্থার (ডব্লিউটিও) রেজুলেশন অনুযায়ী এ দুটি আইন করা হয়েছে। ১৯১১ সালের পেটেন্ট ও ডিজাইন আইন দিয়ে চলছিল। পরে ২০১৬ সালে আইনটিকে দুই ভাগ করে একটা পেটেন্ট ও আরেকটি ডিজাইন আইনের খসড়া করা হয়েছিল। শিল্প মন্ত্রণালয় থেকে আইনটি আনা হয়। পেটেন্ট মালিক বা উদ্ভাবক ২০ বছরের জন্য পেটেন্ট রাইট পাবেন। ২০ বছর পর এটা পাবলিক সম্পদ হয়ে যাবে।

শোক :অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামানের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছে মন্ত্রিসভা। গতকাল মন্ত্রিসভায় শোক প্রস্তাব আনা হয়। এ ছাড়া বৈঠকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘর ও নয়াদিল্লির জাতীয় জাদুঘরের মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের বিষয়ে মন্ত্রিসভাকে অবহিত করা হয়েছে বলে জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।