করোনা মহামারিতে ব্যবহূত সুরক্ষা সামগ্রী যত্রতত্র ফেলা এবং সুষ্ঠু বর্জ্য ব্যবস্থাপনার অভাবে জনস্বাস্থ্যের জন্য হুমকি সৃষ্টি করছে। বাড়ছে দূষণ, বাড়ছে স্বাস্থ্যঝুঁকিও। কিছু হাসপাতাল, ক্লিনিকের বর্জ্যও যুক্ত হচ্ছে এই দূষণে।

গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলন (পবা), কোয়ালিশন ফর দ্য আরবান পুওর (কাপ) ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা বারসিক আয়োজিত করোনা মহামারিতে নিউ নরমাল সময়ের বর্জ্য ব্যবস্থাপনাবিষয়ক নাগরিক সংলাপে বক্তারা এসব কথা বলেন।

সংলাপে পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি আবু নাসের খান বলেন, সুরক্ষা সামগ্রী ব্যবহারের পর যেখানে-সেখানে ফেলে দেওয়া হচ্ছে। এতে এসব সুরক্ষা সামগ্রী বৃষ্টির পানিতে ধুয়ে অথবা অন্য কোনো উপায়ে চলে যাচ্ছে ড্রেন, নদী ও সাগরের তলদেশে। সেখানে গিয়ে নষ্ট করছে জীববৈচিত্র্য ও পরিবেশ।

বারসিকের ফেরদৌস আহমেদ উজ্জ্বলের সঞ্চালনায় পবার সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী আব্দুস সোবহান, বারসিকের সমন্বয়ক জাহাঙ্গীর আলম, কাপের নির্বাহী পরিচালক রেবেকা সান-ইয়াট, কুমুদিনী হাসপাতালের সহযোগী অধ্যাপক ডা. বিলকিস বেগম চৌধুরী, বাপার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিহির বিশ্বাস, পরিবেশবিদ আবুল হাসনাত, বারসিকের পরিচালক তৌহিদুল ইসলাম, সুদিপ্তা কর্মকার, বস্তিবাসী নুরুজ্জামান, কুলসুম বেগম, হাসিনা বিবি বক্তব্য রাখেন।

মন্তব্য করুন