ব্যবসায়ীদের বার্ষিক আনন্দ আয়োজন শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। পুরস্কার নিয়ে বাড়ি ফেরার কথা ছিল অংশগ্রহণকারীদের। হঠাৎ শুকনো একটি গাছ ভেঙে পড়ে দর্শকসারিতে বসা লোকজনের ওপর। আনন্দ অনুষ্ঠান মুহূর্তেই পরিণত হয় বিষাদে। দুই পরিবারের কাছে পুরস্কার হিসেবে যায় নিথর দেহ। মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনাটি ঘটেছে ময়মনসিংহের ভালুকায়। বৃহস্পতিবার রাতে দুর্ঘটনার পর লাশ দুটি গতকাল শুক্রবার দুপুরে দাফন করা হয়।

উপজেলার মল্লিকবাড়ি ইউনিয়নের মল্লিকবাড়ি বাজার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির বার্ষিক বনভোজন-পরবর্তী পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল বৃহস্পতিবার রাতে। মধ্যবাজারে আনুষ্ঠানিক পুরস্কার বিতরণী রাত ১০টায় শুরু হওয়ার কথা ছিল। গত ২৩ ফেব্রুয়ারি সমিতির উদ্যোগে বার্ষিক বনভোজনে যায় জামালপুরের লুইসভিলেজে। পিকনিকের পুরস্কার বিতরণ করতে না পারায় বৃহস্পতিবার রাতে আয়োজন করা হয় অনুষ্ঠানের। অনুষ্ঠানে পুরস্কার নিতে যান বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সদস্য ও কাঠমিস্ত্রি শহিদ মিয়া (৩৫)। সঙ্গে বন্ধু নাসির উদ্দিনকেও (৩৩) নিয়ে যান। শহিদ মল্লিকবাড়ি বাজারের সঙ্গে পালপাড়া এলাকার মৃত আবদুর রহমানের ছেলে। নাসির উদ্দিন পাশের গোবদিয়া গ্রামের সূর্যত আলীর ছেলে।

দুই বন্ধু শহিদ ও নাসির পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান মঞ্চের সামনে দর্শক সারিতে বসে গল্পে লিপ্ত হন। অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার আগেই হঠাৎ একটি গাছ আছড়ে পড়ে। দীর্ঘদিন ধরে শুকনো থাকা গাছটি হঠাৎ উপড়ে পড়ে লোকজনের ওপর। ওই সময় গুরুতর অবস্থায় শহিদ ও নাসিরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। আহত হন আরও কয়েকজন। একটি গাছ পড়ে মুহূর্তেই ম্লান হয়ে যায় আনন্দ অনুষ্ঠানের সব আয়োজন।

দুর্ঘটনায় নিহত নাসির উদ্দিনের আট বছর বয়সী একটি মেয়ে রয়েছে। স্ত্রী সোমা আক্তার ফের অন্তঃসত্ত্বা। স্বামী হারিয়ে অথৈ সাগরে পড়া সোমার আহাজারি থামছিলই না। স্বামীর এমন মৃত্যু কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছেন না তিনি। শহিদ মিয়া ছিলেন দুই কন্যার জনক। এক মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন বছর কয়েক হলো। ঘরে আট বছর বয়সী আরও একটি মেয়ে রয়েছে। সংসারের একমাত্র উপার্জনক্ষম শহিদকে হারিয়ে বাকরুদ্ধ পরিবারটি।

দু'জনের মৃত্যুর ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। শুক্রবার সকাল ১১টায় মল্লিকবাড়ি বাজারের শহীদ নাজিম উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে একসঙ্গে অনুষ্ঠিত হয় দুই বন্ধুর জানাজা। হাজারো মানুষের উপস্থিতিতে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে লাশ দাফন করা হয়।

মল্লিকবাড়ি বাজার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম খান বলেন, শহিদ ও নাসির দু'জনই অত্যন্ত দরিদ্র। সমিতির পক্ষ থেকে দুই পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেওয়া হবে। অন্যদিকে, দুই পরিবারকে এক লাখ টাকা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন ভালুকা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. আবুল কালাম।

মন্তব্য করুন