শরীয়তপুরে ভুল আসামি মুক্তির ঘটনায় জেলা কারাগারের জেলার আমীরুল ইসলামকে প্রত্যাহার ও ডেপুটি জেলার হোসেনুজ্জামানকে সাময়িক বরখাস্ত (সাসপেন্ড) করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক পারভেজ হাসান এ তথ্য নিশ্চিত করেন। গত বুধবার সন্ধ্যায় এ-সংক্রান্ত চিঠি শরীয়তপুর জেলা কারাগারে পৌঁছায়। এর আগে ৬ এপ্রিল দুপুরে কারারক্ষী মোহাম্মদ ইব্রাহিমকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।\হগত ৪ এপ্রিল সন্ধ্যায় শরীয়তপুর কারাগার থেকে লিটন সিকদার সেজে জামিনের কাগজপত্র দেখিয়ে বেরিয়ে গিয়েছিলেন লিটন ফরাজী নামে এক আসামি। পরে ব্যাপারটি বুঝতে পেরে ৫ এপ্রিল পালং মডেল থানায় জিডি করে কারাগার কর্তৃপক্ষ। জেলা কারাগার সূত্রে জানা যায়, গোসাইরহাট থানার একটি চুরির মামলার আসামি লিটন ফরাজী ও লিটন সিকদার। তারা দু'জন রাজবাড়ী ও খুলনার দুটি মামলারও আসামি। লিটন ফরাজী বরিশালের উজিরপুর উপজেলার দামুরকাঠি গ্রামের বাসিন্দা। আর লিটন সিকদার খুলনার খালিশপুরের বাসিন্দা। গত ১১ মার্চ তাদের শরীয়তপুর জেলা কারাগারে আনা হয়।

মন্তব্য করুন