ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার আটগ্রাম এলাকায় রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা লরির ধাক্কায় তিনজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও সাতজন। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে লকডাউনে ফাঁকা রাস্তায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- ট্রাকের হেলপার চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলার করেরহাটের আলমগীর হোসেন (২৭), মোটরসাইকেল আরোহী চৌদ্দগ্রামের উনকোট গ্রামের রফিক মিয়ার ছেলে পেয়ার আহম্মেদ (৩৫) ও লরি চালক রাসেল (৩৮)। তিনজন নিহত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মিয়াবাজার হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. আসাদুজ্জামান।\হপ্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের আটগ্রাম পুরাতন রাস্তায় ঢাকামুখী বেপরোয়া গতির একটি লরি (ঢাকা মেট্রো-ঢ-৬২-০০১৬) দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্রাক (ফেনী-ট-১১-০০৪৬) ও একটি মোটরসাইকেলকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। দুমড়েমুচড়ে যাওয়া ট্রাকটি তখন পাশের একটি রেস্টুরেন্টে ঢুকে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই তিনজন নিহত হন। আহত হন আরও সাতজন। খবর পেয়ে মিয়াবাজার হাইওয়ে ফাঁড়ির পুলিশ ও চৌদ্দগ্রাম ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে প্রথমে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করেন। আহতরা হলেন- ট্রাকচালক গাইবান্ধার পলাশবাড়ী এলাকার মো. শহীদ (৪৫), লরির হেলপার কিশোরগঞ্জের শাহাদাত (২৭), কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার ফালগুনকরা গ্রামের রাজন (২২), রেদোয়ান (২৪), গাইবান্ধার পলাশবাড়ীর মামুন (২৫) ও চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলার রাজীব (৩৫)।

মিয়াবাজার হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. আসাদুজ্জামান বলেন, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহত ও দুর্ঘটনাকবলিত গাড়িগুলো উদ্ধার করে ফাঁড়িতে নিয়ে আসে।

কিশোরগঞ্জে ব্যবসায়ী নিহত :কিশোরগঞ্জ অফিস জানায়, ট্রাক্টরচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী হোটেল ব্যবসায়ী রাজিবুল আলম (৪৩) নিহত হয়েছেন। গতকাল বিকেলে কিশোরগঞ্জ-নিকলী সড়কের সদর উপজেলার যশোদল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত রাজিবুল আলম শহরের বড়বাজার এলাকার মৃত অ্যাডভোকেট আমিনুল ইসলাম ভুঞার ছেলে। তিনি শহরের ঈশাখাঁ রোডে অবস্থিত ধানসিড়ি ফুড প্যালেসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ছিলেন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, কটিয়াদী উপজেলার চান্দপুরে নিজের মৎস্য খামার পরিদর্শন শেষে বিকেলে রাজিবুল আলম মোটরসাইকেলে কিশোরগঞ্জ শহরের বাসায় ফিরছিলেন। পথে সদর উপজেলার যশোদলে শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এলাকায় একটি ট্রাক্টর তার মোটরসাইকেলটিকে চাপা দেয়। এতে রাজিব গুরুতর আহত হলে দ্রুত তাকে শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

মন্তব্য করুন