গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, মানুষের অধিকার আদায়ে কথা বলা যদি অপরাধ হয়, আমিও সেই অপরাধে অপরাধী। আমাকেও গ্রেপ্তার করুন। তিনি বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আগমনকে কেন্দ্র করে গ্রেপ্তার ছাত্ররা কি কাউকে খুন করেছে, চাঁদাবাজি বা ছিনতাই করেছে? তারা মানুষের অধিকারের কথা বলেছে, যৌক্তিক প্রতিবাদ করেছে। গ্রেপ্তার ছাত্রদের মুক্তির দাবিতে সোমবার রাজধানীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে অবস্থান কর্মসূচিতে তিনি এসব কথা বলেন।

এতে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, খুবই দুঃখ লাগে একটা সরকার কত দুর্বল হলে কিছু ছাত্রের ভয়ে কাঁপতে হয়। তাদের গ্রেপ্তার করেছে, রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতন করা হচ্ছে। রিমান্ড খুবই ফালতু জিনিস। এখানে নির্যাতন করা ছাড়া কোনো কাজ নেই।

গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি বলেন, 'গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে তিনজন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। ভিসি কী করছেন।' ঢাবির সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর বলেন, মতিঝিলে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে পুলিশ হামলা করেছে। তিনি বলেন, ছাত্রদের পরিবারসহ সিদ্ধান্ত নিয়েছি, ঈদের আগে তাদের মুক্তি না দিলে আমাদের ঈদ হবে গণভবনের সামনে। এতে আরও বক্তব্য দেন আলোকচিত্রী শহিদুল আলম, অধ্যাপক আসিফ নজরুল, ভাসানী অনুসারী পরিষদের মহাসচিব শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু, সুশাসনের জন্য নাগরিকের ড. বদিউল আলম মজুমদার, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক দিলারা চৌধুরী, রাষ্ট্রচিন্তার সদস্য অ্যাডভোকেট হাসনাত কাইয়ুম ও ভাসানী অনুসারী পরিষদের সদস্য ব্যারিস্টার সাদিয়া আরমান। পরে ডা. জাফরুল্লাহর নেতৃত্বে প্রতিনিধি দল কারাবন্দি ছাত্রদের মুক্তির ব্যাপারে ঢাবির ভিসির সঙ্গে দেখা করে।

এদিকে বিকেলে অন্য এক অনুষ্ঠানে ডা. জাফরুল্লাহ বলেছেন, দেশের অর্ধেক মানুষের খাবার নেই। গণপরিবহন বন্ধ অথচ প্রাইভেট গাড়ি চলছে। ধানমন্ডি এলাকায় জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি আয়োজিত কর্মহীন মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় জেএসডি কার্যকরী সভাপতি সা ক ম আনিসুর রহমান খান কামাল, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ সিরাজ মিয়া, কার্যকরী সাধারণ সম্পাদক শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামাল উদ্দিন পাটোয়ারী, সাংগঠনিক সম্পাদক সামছুল আলম নিক্সন, এম এ ইউসুফ, আবুল মোবারক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য করুন