নবাবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. জালাল উদ্দিনের বিরুদ্ধে ৩ মে একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় 'নারী উদ্যোক্তার ওপর জুলুম নির্যাতন, বান্দুরা নাশকতায় থানায় এখনও মামলা নেয়নি, অভিযুক্তদের সঙ্গে ওসির গোপন বৈঠক' শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করার প্রতিবাদে নবাবগঞ্জে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার নবাবগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাকক্ষে এ সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

আওয়ামী লীগ নেতা জালাল উদ্দিন তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, ২৮ এপ্রিল সকালে বান্দুরা বাসস্ট্যান্ডে এন মল্লিক পরিবহনের ৯টি বাস ও ১৫টি দোকান আগুনে পুড়ে যায়। এ ঘটনায় উপজেলা প্রশাসন সাত সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করে। তদন্ত কমিটির কাজ চলমান। তদন্ত উপেক্ষা করে একটি চক্র আমাকে ফাঁসানোসহ হেয়প্রতিপন্ন করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

জালাল বলেন, ঢাকা বসে অসত্য তথ্য দিয়ে মিথ্যা, বানোয়াট, মনগড়া কল্পকাহিনি লিখে আমাকে সামাজিক, অর্থনৈতিক ও ব্যবসায়িকভাবে হেয় করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে ওই চক্রটি।

মন্তব্য করুন