প্রতি বছর ঈদ উপলক্ষে ভালনারেবল গ্রুপ ফিডিং (ভিজিএফ) কর্মসূচির আওতায় সরকারি সহায়তা নিতে গিয়ে নানা ঝক্কি পোহাতে হতো উপকারভোগীদের। তালিকা প্রস্তুত ও বিতরণে নানা জটিলতা দেখা দিত। এই জটিলতা এড়াতে এবার প্রযুক্তির সহায়তা নিয়েছে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন। তৈরি করা হয়েছে 'মানবিক সহায়তা কর্মসূচি ঈশ্বরগঞ্জ' নামে একটি সফটওয়্যার। এর ব্যবহারে সহজ হয়েছে সহায়তা বিতরণ কার্যক্রম।

সুষ্ঠুভাবে সহায়তা বিতরণে এই সফটওয়্যারে মোবাইল নম্বর, এনআইডিসহ নাগরিকদের সব তথ্য-উপাত্ত সংরক্ষণ করা হয়েছে। ভিজিএফ নীতিমালার শর্ত অনুযায়ী কমপক্ষে ৭০ শতাংশ নারী উপকারভোগী নির্বাচন করা হয়েছে। সফটওয়্যারের মাধ্যমে তালিকা প্রস্তুত করায় একই ব্যক্তি একাধিকবার তালিকাভুক্ত হওয়ার সুযোগ পায়নি। এতে অনেক এলাকায় উপকারভোগী পাওয়া নিয়ে সংকটও তৈরি হয়।

সরেজমিন খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ভিজিএফ প্রাপ্যতা রয়েছে এমন সব পরিবার থেকে কমপক্ষে একজনকে তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার সকাল থেকে উপজেলার সোহাগী, সরিষা, আঠারবাড়ী ও মাইজবাগ ইউনিয়নে বিতরণ কার্যক্রম শুরু হয়। উপকারভোগীরা এসে জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি নিয়ে নিজের ক্রমিক সংগ্রহ করে টাকা সংগ্রহ করে নিচ্ছেন। এতে অনিয়ম হওয়ার সুযোগ নেই বলছেন সংশ্নিষ্টরা। তবে অন্য উপজেলাগুলোতে তালিকাভুক্ত কার্ডধারীদের মাস্টাররোলে স্বাক্ষর রেখে দেওয়া হচ্ছে টাকা।

মন্তব্য করুন