বিশিষ্ট সাংবাদিক হাসান শাহরিয়ার ছিলেন প্রজন্মের সেতুবন্ধন। সাংবাদিকতায় তার অবদান তাকে চিরদিন বাঁচিয়ে রাখবে। প্রয়াত সাংবাদিক হাসান শাহরিয়ার স্মরণে গতকাল শুক্রবার অনলাইন প্ল্যাটফর্মে আয়োজিত সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

ঢাকাস্থ সুনামগঞ্জবাসীর আয়োজনে এ স্মরণসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। আলোচনায় অংশ নেন মানবজমিনের প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী, সমকালের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মুস্তাফিজ শফি, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন, জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ড. এ কে আবদুল মুবিন, সিনিয়র সচিব দিলোয়ার বখত, স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত চিকিৎসক অধ্যাপক এম ইউ কবীর চৌধুরী, ডাচ্‌-বাংলা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল কাশেম মো. শিরিন, পুলিশের রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি আব্দুল বাতেন, প্রয়াত হাসান শাহরিয়ারের ভাই হোসেন তৌফিক চৌধুরীসহ সিলেট অঞ্চলের গণ্যমান্য ব্যক্তিরা।

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, হাসান শাহরিয়ার সাংবাদিক হিসেবে অত্যন্ত সচেতন ও মেধাবী ছিলেন। তিনি ছিলেন খুবই বিনয়ী ও সজ্জন। নিয়মিত মৌলিক লেখালেখির সঙ্গেও যুক্ত ছিলেন। একজন সাংবাদিক কীভাবে পেশাগত দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে সমাজে আলো ছড়াতে পারেন, গুণীজন হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে পারেন, তার অনন্য উদাহরণ হাসান শাহরিয়ার। সাংবাদিকতায় অসাধারণ অবদানের জন্য তাকে মানুষ চিরদিন মনে রাখবে।

মতিউর রহমান চৌধুরী বলেন, হাসান শাহরিয়ার বহুমাত্রিক প্রতিভার অধিকারী ছিলেন। তিনি দক্ষতার সঙ্গে বস্তুনিষ্ঠ রিপোর্ট করেছেন, দায়িত্বশীল কলাম লিখেছেন, বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বই লিখেছেন। দায়িত্বশীলতা আর হঠকারিতার পার্থক্য করার বিষয়ে তিনি সব সময় জোর দিতেন এবং বলতেন, কোনো অবস্থাতেই হঠকারী হওয়া যাবে না। তিনি আদর্শ সাংবাদিকতার অনন্য উদাহরণ।

মুস্তাফিজ শফি বলেন, হাসান শাহরিয়ার অগ্রজ ছিলেন, অনুকরণীয় মানুষ ছিলেন। একই সঙ্গে তিনি অনুজের সঙ্গে একটি সেতুবন্ধনও রচনা করতেন। নিজের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে মুস্তাফিজ শফি বলেন, হাসান শাহরিয়ার সর্বশেষ নিজের লেখা একটি বইয়ের পাণ্ডুলিপি তার (মুস্তাফিজ শফি) কাছে পাঠান ভূমিকা লেখার জন্য। তিনি হাসান শাহরিয়ারের কাছে সসংকোচে জানতে চান, কেন বইয়ের ভূমিকা লেখার জন্য তিনি একজন অনুজকে বেছে নিয়েছেন? জবাবে হাসান শাহরিয়ার বলেন, তিনি জেনে-বুঝেই অনুজের কাছে ভূমিকা লেখার জন্য পাণ্ডুলপি পাঠিয়েছেন। কারণ এটাই হওয়া উচিত। এভাবেই অগ্রজ-অনুজের সেতুবন্ধন রচিত হবে।

ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, বড় মাপের মানুষ হয়েও হাসান শাহরিয়ার অহংকারী ছিলেন না। অনুজদের প্রতি তার দারুণ স্নেহ ছিল, সবাইকে খুব অল্প সময়ে আপন করে নেওয়ার অসাধারণ গুণ ছিল। তিনি জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ছিলেন। করোনা মহামারি পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে তার স্মরণে জাতীয় প্রেস ক্লাব জাতীয় স্মরণসভার আয়োজন করবে বলে ফরিদা ইয়াসমিন জানান।

মন্তব্য করুন