অন্যদিনের মতো রোববারও কিশোরী তিন্নির সময় কাটছিল স্বাভাবিকভাবেই। কিন্তু রাতে হঠাৎ বাড়িতে হাজির বর! মেয়েটি তখনই জানতে পারল তার বিয়ের কথা। হতভম্ব কিশোরীটি এরপর ছুটে গিয়ে আশ্রয় নিল থানায়। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পায় অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী তিন্নি আক্তার।

ঘটনাটি ঘটেছে রোববার রাতে বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার বাকাল ইউনিয়নের ফুলশ্রী গ্রামে। তিন্নি ওই গ্রামের শাহজাহান ফকিরের মেয়ে। সে স্থানীয় বিএইচপি একাডেমিতে অষ্টম শ্রেণিতে পড়ছে।

আগৈলঝাড়া থানার ওসি গোলাম সরোয়ার বলেন, মেয়েটি থানায় আশ্রয় নেওয়ার পর তার কাছে ঘটনা শুনে রাতেই তার মা-বাবাকে থানায় নিয়ে আসা হয়। প্রাপ্তবয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত মেয়েকে বিয়ে দেবেন না বলে মুচলেকা দেওয়ার পর গতকাল সোমবার দুপুরে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, পাশের বাসুন্ডা গ্রামের রুহুল তালুকদারের ছেলে হাসিব তালুকদারের সঙ্গে গোপনে রোটারি পাবলিকের মাধ্যমে মেয়ের বিয়ের চুক্তিনামা করেন শাহজাহান ফকির। বিষয়টি জানত না কিশোরী তিন্নি।

মন্তব্য করুন