জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পরিবারের সদস্যসহ রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের নিরাপত্তা দেবে স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স (এসএসএফ)। তাদের নিরাপত্তা দেওয়ার বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করে 'বিশেষ নিরাপত্তা বাহিনী (স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স) আইন, ২০২১'-এর খসড়া নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে সরকার। সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার ভার্চুয়াল বৈঠকে এটি অনুমোদন দেওয়া হয়। গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী ও সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে মন্ত্রীরা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠকে যোগ দেন। এ ছাড়া বৈঠকে ব্যাংক কোম্পানি (সংশোধন) আইন ২০২১-এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন, স্বর্ণ নীতিমালা-২০১৮ (সংশোধিত-২০২১)-এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পিরোজপুর আইন-২০২১-এর খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হয়। বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, সামরিক শাসনের সময় জারি করা অধ্যাদেশের মাধ্যমে চলছিল এসএসএফ। উচ্চ আদালতের নির্দেশনায় এটিকে নতুন করে আইনে রূপান্তর করা হচ্ছে। নতুন করে যুক্ত হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সদস্য ও অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের দৈহিক নিরাপত্তা প্রদান। জাতির পিতা ও তার পরিবারের সদস্যদের আইনে যুক্ত করা হয়েছে। পরিবারের সদস্য বলতে দুই মেয়ে ও তাদের সন্তান, সন্তানদের স্বামী ও স্ত্রী এবং তাদের সন্তানরা। সরকারের গেজেট প্রজ্ঞাপন দিয়ে ঘোষিত গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি, কোনো বিদেশি রাষ্ট্রের রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানরা এ আইনের অধীনে নিরাপত্তা পাবেন।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, বঙ্গবন্ধুর পরিবারের সদস্যদের নিরাপত্তা দিতে 'জাতির পিতার পরিবার-সদস্যগণের নিরাপত্তা আইন, ২০০৯' রয়েছে। এ আইনে নিরাপত্তা দেওয়ার বিষয়টি থাকলেও এসএসএফের মাধ্যমে নিরাপত্তা দেওয়ার বিষয়টি নেই। কিন্তু ২০০৯ সালের আইনের অধীনে জাতির পিতার পরিবারের সদস্যদের এসএসএফের মাধ্যমেই নিরাপত্তা দেওয়া হচ্ছে।

শিক্ষার্থীদের টিকা নিশ্চিতের পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলবে :মন্ত্রিপরিষদ সচিব আশা প্রকাশ করে বলেছেন, শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া সম্ভব হবে। তিনি বলেন, স্কুল-কলেজ

খোলার বিষয়ে অনেক আলোচনা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া সম্ভব হলে তাড়াতাড়ি স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়া যাবে।

আংশিক পরিশোধিত স্বর্ণ আমদানি করা যাবে : দেশে স্বর্ণ পরিশোধনাগার স্থাপন ও অপরিশোধিত স্বর্ণ আকরিক এবং আংশিক পরিশোধিত স্বর্ণ আমদানির সুযোগ রেখে একটি নীতিমালার খসড়া অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

দুর্নীতি করলে ব্যাংক কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা : দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত হলে ব্যাংক কর্মকর্তাদের বড় অঙ্কের জরিমানা ও মামলার মুখে পড়তে হবে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব। ব্যাংক কোম্পানি আইনে যে সংশোধন করা হচ্ছে, সেখানে এই বিধান যুক্ত করা হচ্ছে বলে জানান তিনি। এ বিধান যুক্ত করে মন্ত্রিসভার বৈঠকে 'ব্যাংক-কোম্পানি (সংশোধন) আইন, ২০২১'-এর খসড়া নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, দেশের ব্যাংকগুলোর কার্যক্রম 'ব্যাংক কোম্পানি আইন, ১৯৯১'-এর আওতায় পরিচালিত হয়। ব্যাংকের সংখ্যা, সম্পদ, আমানত, ঋণ, লিজ, বিনিয়োগ বেড়েছে। ফলে বর্তমান আইনের আওতায় সবকিছু নেই। সে জন্য ব্যাংকিং ব্যবসা পরিচালনা, তদারকি, খেলাপি ঋণ নিয়ন্ত্রণ, দেশের আর্থিক খাতের সুশাসন এবং স্থিতিশীলতার জন্য এই আইনটি সংশোধনের প্রয়োজন ছিল। সে জন্য এই সংশোধনী আনা হয়েছে। বিভিন্ন দেশের ব্যাংক কোম্পানি আইন-সংক্রান্ত বিষয়গুলো পর্যালোচনা করে সংশোধনীর খসড়া তৈরি করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন