পৃথক ঘটনায় নোয়াখালীর হাতিয়া ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়েছে সাত শিশু-কিশোর। জাল চুরির অভিযোগে রোববার হাতিয়া উপজেলার চরকিং ইউনিয়নের শুল্লকিয়া গ্রামে পাঁচ কিশোরকে কোমরে রশি দিয়ে বেঁধে বেধড়ক পেটান গ্রাম্য চৌকিদার। আগের দিন শনিবার সন্ধ্যায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলার সিঙ্গারবিল ইউনিয়নের মেরাসানি গ্রামে মোবাইল ফোন চুরির অপবাদে দুই শিশুকে একইভাবে নির্যাতন করা হয়। এ দুটি ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে পুলিশ সাতজনকে গ্রেপ্তার করে।

হাতিয়ায় নির্যাতনের শিকার এক কিশোরের বাবা জানান, তার ছেলেসহ পাঁচ কিশোর জেলে রোববার সকালে ১০-১১ হাতের তিনটি বিন্দিজাল নিয়ে যায়। পরে ওই জাল উদ্ধার করে মালিককে দিয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু স্থানীয় পঞ্চায়েত শ্রীহরি জলদাশ, নেপাল দাস, প্রিয় লাল, রাশ মহন, মহলাল দাস ও চৌকিদার আমির হোসেন মিলে কিশোর জেলেদের ডেকে পাঠান। এক পর্যায়ে প্রকাশ্যে তাদের বেঁধে লাঠি দিয়ে নির্যাতন করা হয়। এ ছাড়া সালিশে প্রত্যেককে দুই হাজার টাকা করে জরিমানা করেন মাতবররা।

ওই ঘটনায় সেদিন রাতেই নির্যাতনের শিকার শিশুপদ দাসের বাবা হরিপদ দাস বাদী হয়ে হাতিয়া থানায় মামলা করেন। রাতে পুলিশ চারজনকে আটক করে বলে জানিয়েছেন হাতিয়া থানার ওসি আবুল খায়ের।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলার মেরাসানি গ্রামে নির্যাতনের শিকার দুই শিশু হলো- মৃত মজনু মিয়ার ছেলে ইয়াকুব মিয়া (১২) ও পার্শ্ববর্তী খিরাতলা গ্রামের মাহফুজ মিয়ার ছেলে মোস্তাকিম (১৬)। ইয়াকুবের বাবা মারা গেছেন সাত-আট বছর আগে। মা বিদেশে থাকেন। শনিবার সন্ধ্যায় নানার জন্য পাড়ার দোকান থেকে সিগারেট আনতে গিয়ে নিখোঁজ হয় ইয়াকুব। রাত ১০টা পর্যন্ত স্বজনরা খোঁজাখুঁজি করেও তার সন্ধান পাননি। পরদিন দুপুরে খবর পান ইয়াকুবসহ আরেক শিশুকে একই গ্রামের আলীম মিয়ার বাড়িতে আটকে রেখে রাতভর নির্যাতন করা হয়েছে। স্বজনরা সেখানে গিয়ে তাদের ছেড়ে দেওয়ার অনুরোধ করলে নির্যাতনকারীরা জানায় তারা মোবাইল ফোন চুরি করেছে। মোবাইল ফোনের দাম হিসেবে ৫০ হাজার টাকা দিতে হবে। পরে এলাকাবাসীর সহায়তায় ইয়াকুবকে উদ্ধার করে আখাউড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। শিশু নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল হলে রোববার রাতেই শিশুটির নানি আরোজা বেগম থানায় মামলা করেন। পরে পুলিশ শাহীন, মান্নান ও বাবুল নামে তিনজনকে গ্রেপ্তার করে বলে জানিয়েছেন ওসি আতিকুল ইসলাম।

মন্তব্য করুন