বান্দরবান সদর উপজেলায় এক পল্লিচিকিৎসককে অপহরণের পর হত্যা করা হয়েছে। তার পরিবারের দাবি, জায়গা-জমি নিয়ে

বিরোধের জেরে এ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। হত্যাকাণ্ডে স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতা জড়িত বলে তাদের সন্দেহ।

অংক্যথোয়াই মার্মা উগ্যকে রোববার বিকেলে কুহালং কুহালং ইউনিয়নের নিজ ফার্মেসি থেকে অস্ত্রের মুখে অপহরণ করা হয় বলে জানা গেছে। গতকাল সোমবার সকালে বাকিছড়া এলাকার একটি ইটভাটার কাছ থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী বাথুইমং মার্মা বলেন, রোববার সন্ধ্যার আগে চিৎকার শুনে তিনি তার দোকান থেকে বাইরে এসে দেখেন, সন্ত্রাসীরা অস্ত্রের মুখে একটি মাহেন্দ্র গাড়িতে অংক্যথোয়াইকে তুলে নিয়ে যায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরেক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, এ সময় এলাকার চারপাশে আরও ২০-২৫ জন অস্ত্রধারী পাহারা দিচ্ছিল। অস্ত্রধারীরা নিজেদের মগ পার্টি (মগ লিবারেশন পার্টি) নামে পরিচয় দেয়।

পরিবারের দাবি, অপহরণ করে হত্যার সঙ্গে মগ পার্টির সদস্যরা জড়িত থাকতে পারে। জায়গা-জমি নিয়ে বিরোধের জেরে মগ পার্টিকে ব্যবহার করা হয়েছে- ধারণা পরিবারের সদস্যদের। নিহতের স্ত্রী চপ্রুথুই মার্মা বলেন, বান্দরবান পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খাইরুল বশরের সঙ্গে তার স্বামীর দীর্ঘদিন ধরে জমি নিয়ে বিরোধ রয়েছে। কয়েকবার তার স্বামী জেলেও গেছেন। জমি নিয়ে বিরোধ ছাড়া তার স্বামীর সঙ্গে আর কারও দ্বন্দ্ব নেই। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত বশরের বক্তব্য জানা সম্ভব হয়নি।

মন্তব্য করুন