সন্ত্রাসী হামলার শিকার কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আজম পাশা চৌধুরী রোমেলের বাড়িতে শান্তির প্রস্তাব নিয়ে গেলেন বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা। গতকাল শনিবার সকালে দলবল নিয়ে ওই বাড়িতে প্রায় আধঘণ্টা অবস্থান করে চা-নাশতা খান তিনি।

গত ১৫ জুলাই কাদের মির্জার অনুসারী কেচ্চা রাসেলের নেতৃত্বে একদল যুবক আজম পাশা চৌধুরী রোমেলের বাড়িতে হামলা চালিয়ে গুলি ও ককটেল বিস্ম্ফোরণ ঘটায়। ওই ঘটনায় পাঁচজন গুলিবিদ্ধসহ আটজন আহত হন।

কাদের মির্জার শান্তি প্রস্তাব প্রসঙ্গে আজম পাশা চৌধুরী রোমেল বলেন, কাদের মির্জার আগামী মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্র সফরে যাওয়ার কথা রয়েছে। এ উপলক্ষে তিনি সকালে কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে আমার বাড়িতে আসেন। অতীতে যা হয়েছে, সব ভুলে গিয়ে মিলেমিশে চলার কথা বলেন তিনি। রোমেল আরও বলেন, কাদের মির্জা যে প্রস্তাব দিয়েছেন, সেটা আমাদের লোকজনের সঙ্গে পরামর্শ করব। এরপর সবাই মিলে যে সিদ্ধান্ত নেয়, সে অনুযায়ী সামনে এগিয়ে যাব।

কাদের মির্জার এ উদ্যোগকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন অনেকেই। স্থানীয় বাসিন্দা স্বপন মাহামুদ বলেন, কাদের মির্জার এ ঘটনা কোম্পানীগঞ্জে ইতিহাস হয়ে থাকবে। তবে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াত খান কাদের মির্জার শান্তির প্রস্তাবকে নাটক বলেছেন। তিনি বলেন, কাদের মির্জা মানুষকে অপমান করতেও দেরি করেন না, আবার তাদের কাছে ক্ষমা চাইতেও দেরি করেন না।

মন্তব্য করুন