রাজশাহী নগরীর দামকুড়া থানার কলার টিকর গ্রামের আসাদ আলীর ছেলে রবিউল ইসলাম রবি। পেশায় কাঠমিস্ত্রি হলেও নিজেকে লেফটেন্যান্ট কর্নেল পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করতেন তিনি। সেনা কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে অনেকের কাছ থেকে হাতিয়ে নিয়েছেন টাকা-পয়সা। দুই নারীকে বিয়ে করে ব্ল্যাকমেইলের মাধ্যমে তাদের কাছ থেকেও নিয়েছেন অর্থ। অবশেষে দ্বিতীয় স্ত্রীর করা অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়েছেন রবিউল। নগরীর কোর্ট স্টেশন এলাকা থেকে রোববার রাতে তাকে আটক করে রাজশাহী মহানগর পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইউনিট। পরে প্রতারণার অভিযোগে করা মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

মহানগর পুলিশের মুখপাত্র গোলাম রুহুল কুদ্দস জানান, পাবনার এক চাকরিজীবীর স্ত্রীর সঙ্গে ফেসবুকে পরিচয় হয় রবিউলের। মেসেঞ্জারে ওই নারীকে লেফটেন্যান্ট কর্নেল পরিচয় দিয়ে কথা বলেন। স্বামীর চাকরির কারণে বাইরে থাকার সুযোগ নিয়ে রবিউল ওই নারীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়ান। নানা প্রলোভন দেখিয়ে ওই নারীকে গত ১৩ আগস্ট বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকেই রবিউল গোপনে ওই নারীর সঙ্গে অন্তরঙ্গ মুহূর্তের বিভিন্ন আপত্তিকর ছবি মোবাইলে ধারণ করে সেগুলো অন্যদের মেসেঞ্জারে পাঠিয়ে তাকে ব্ল্যাকমেইল করতেন। বিষয়টি বুঝতে পেরে ওই নারী রবিউলকে তালাক দেন। এর প্রতিশোধ নিতে রবিউল ফেসবুকে ভুয়া আইডি খুলে মেসেঞ্জারে ওই নারীর আত্মীয়-স্বজনের তার আপত্তিকর ছবি পাঠিয়ে টাকা দাবি করেন।

মন্তব্য করুন