স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, কুমিল্লায় সাম্প্রদায়িক সংহিসতার মূল অভিযুক্তকে শনাক্ত করা হয়েছে। মূল অভিযুক্ত বারবার অবস্থান পরিবর্তন করছে। খুব অল্প সময়ের মধ্যে তাকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হবে। কেন সে এ ঘটনা ঘটিয়েছে, তা জানানো হবে।

গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর কুর্মিটোলায় র‌্যাব সদর দপ্তরে 'র‌্যাবের প্রযুক্তিগত আধুনিকায়ন' কার্যক্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। র‌্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন, অতিরিক্ত আইজিপি (প্রশাসন ও ইন্সপেকশন) মইনুর রহমান চৌধুরী, ন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন মনিটরিং সেন্টারের পরিচালক (এনটিএমসি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জিয়াউল আহসান, র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন্স) কর্নেল কে এম আজাদ প্রমুখ।

মন্ত্রী বলেন, কুমিল্লার ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঁদপুরে কিছু উগ্র মানুষ হিন্দু সম্প্রদায়ের একটি উপাসনালয়ে ভাঙচুরের চেষ্টা করেছে। সেখানে পুলিশকে পরিস্থিতি মোকাবিলায় হিমশিম খেতে হয়েছে। রংপুরে পরিতোষ নামে এক অল্পবয়সী ছেলে ফেসবুকে আপত্তিকর স্ট্যাটাস দিয়েছে। সেটাকে কেন্দ্র করে হয়েছে সহিংসতা। পুলিশ তার বাড়িঘর রক্ষায় চেষ্টা করেছে। তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কিন্তু ইতোমধ্যে তার পাশের গ্রামে অগ্নিসংযোগ, লুটপাট ও ভাঙচুর হয়েছে। আমরা এর নিন্দা জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, ফেসবুকে মিথ্যা প্রচারের মাধ্যমে রামু, নাসিরনগর, ভোলায় অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের অপচেষ্টা করা হয়েছে। যখনই এসব ঘটনা আপনারা (গণমাধ্যমকর্মী) ফেসবুকে দেখেন, তার সত্যতা যাচাই করবেন। স্বার্থান্বেষী একটি মহল অপপ্রচার চালাচ্ছে।

মন্তব্য করুন