দেশের সব মানুষের জন্য মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবা আরও সহজলভ্য ও সাশ্রয়ী করার জন্য কাজ করছে উদ্ভাবনী ডিজিটাল হেলথকেয়ার প্রোভাইডার ডিজিটাল হসপিটাল। চ্যাট, ভয়েস ও ভিডিও কলের মাধ্যমে ডাক্তারের পরামর্শ প্রদানের পাশাপাশি এই প্ল্যাটফর্মে রোগী ও তাদের পরিবারের চিকিৎসা ব্যয়ে আর্থিক সহায়তা দিতে আছে ফ্রি হেলথ ক্যাশব্যাক সুবিধা। এর আওতায় এখন পর্যন্ত ৮ হাজার মানুষকে ১০ কোটিরও বেশি টাকা প্রদান করা হয়েছে।

যাদের সবচেয়ে বেশি সহায়তা প্রয়োজন তাদের বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে অ্যাপের মাধ্যমে সার্বক্ষণিক সামগ্রিক স্বাস্থ্যসেবা সমাধান প্রদানই ডিজিটাল হসপিটালের লক্ষ্য। তবে অনেকের জন্য চিকিৎসা ব্যয় বহন বেশ দুশ্চিন্তার। তাদের কথা বিবেচনায় রেখে ডিজিটাল হসপিটাল ফ্রি হেলথ ক্যাশব্যাক শীর্ষক একটি ফিচার চালু করেছে। এর মাধ্যমে রোগীরা ডিজিটাল হসপিটাল অ্যাপ ব্যবহার করে তাদের চিকিৎসা ব্যয়ের ওপর ক্যাশব্যাক সুবিধা উপভোগ করতে পারেন।

হাসপাতালের বিল, ডায়াগনস্টিক টেস্ট, মাতৃত্বকালীন চিকিৎসা ও কভিড-১৯ আইসোলেশন থেকে শুরু করে এতে উল্লিখিত যে কোনো ক্যাটাগরির ক্ষেত্রে অ্যাপের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট জমা দিয়ে রোগীরা ফ্রি হেলথ ক্যাশব্যাক উপভোগ করতে পারবেন। এ বিষয়ে প্রায় ৭৫ শতাংশ আবেদন অ্যাপের মাধ্যমে ডিজিটালভাবে গ্রহণ করে ব্যবস্থা নেওয়া হয়। ফ্রি হেলথ ক্যাশব্যাকের সীমা ৪ হাজার থেকে আড়াই লাখ টাকা পর্যন্ত, যা ডিজিটাল হসপিটালের বিভিন্ন প্যাকেজ সাবস্ট্ক্রাইব করার মাধ্যমে রোগীরা উপভোগ করতে পারবেন।

ডিজিটাল হসপিটালের সিসিও অ্যান্ড্রু স্মিথ বলেন, 'কাছের মানুষের চিকিৎসা খরচ বহন করতে গিয়ে প্রতি বছর বাংলাদেশের লক্ষাধিক পরিবার দারিদ্র্যের শিকার হয়। আমাদের পার্টনারদের সঙ্গে নিয়ে আমরা বাংলাদেশে স্বাস্থ্যসেবাকে আরও সহজলভ্য ও সাশ্রয়ী করে তুলতে পারব।' গ্রামীণ টেলিকম ট্রাস্ট পরিচালিত ডিজিটাল হসপিটাল সারাদেশে ১৩০টির বেশি কমিউনিটি ক্লিনিক ও ৪টি চক্ষু হাসপাতাল পরিচালনা করে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

মন্তব্য করুন