ডেন্টাল কলেজে ভর্তি পরীক্ষায় অকৃতকার্য হয়েছিলেন এক ছাত্রী। ফল প্রকাশের পর তা নিয়ে আলোচনা করেন ফেসবুকে পরিচিত আবু মুসা আসারীর সঙ্গে। মুসা নিজেকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে ওই ছাত্রীর রোল নম্বর নেন। একটু পরই জানান, পরীক্ষার রেজাল্ট ভালো হয়েছে, ভর্তি সংশ্নিষ্টদের অনিয়মের কারণে তিনি ভর্তির সুযোগ পাননি। তবে ১০ লাখ টাকা দিলে তিনি ভর্তির ব্যবস্থা করে দেবেন।

শুধু তাই নয়, বিশ্বাস স্থাপনের জন্য মুসা ইমো আইডিতে ওই ছাত্রীকে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের এক কর্মকর্তার পরিচয়পত্র পাঠিয়ে দেন। এরপর ভর্তিচ্ছু ছাত্রী মুসাকে দুই লাখ টাকা দেন। এর পরই আসল রূপ বেরিয়ে আসে তার। এড়িয়ে চলতে থাকেন ছাত্রীকে, টাকা ফেরত চাইলে ভয় দেখান।

গোয়েন্দা পুলিশ জানিয়েছে, রোববার রাতে গ্রেপ্তার মুসা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র। তার বাড়ি বরিশালের বাকেরগঞ্জে। দুই বছর ধরে তিনি বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি-বাণিজ্যের নামে প্রতারণা করে আসছিলেন।

মন্তব্য করুন