রাঙামাটির কাপ্তাইয়ে ১০ দিনের ব্যবধানে নির্বাচনী সহিংসতায় আবারও রক্ত ঝরল। এবার ইউনিয়ন পরিষদের দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে বর্তমান সদস্য সজিবুর রহমান সজিব (৪৫) নিহত হয়েছেন। গত মঙ্গলবার মধ্যরাতে কাপ্তাই উপজেলা সদরের নতুন বাজার এলাকায় এ ঘটনা

ঘটে। এর আগে গত ১৬ অক্টোবর রাতে কাপ্তাইয়ের চিৎমরম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী এবং নেথোয়াই মারমা দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত হন।

এ ঘটনায় গতকাল বুধবার নতুন বাজার এলাকায় বিক্ষোভ করেছেন সজিবুর রহমান সজিবের কর্মী-সমর্থকরা। তারা নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে এই হত্যাকাণ্ডের বিচারের দাবি জানিয়েছেন। আগামী ১১ নভেম্বর কাপ্তাই উপজেলার কাপ্তাই, রাইখালি ও ওয়াজ্ঞগ্দা ইউনিয়নে নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রাতে উপজেলা সদরের নতুন বাজার এলাকার মা বেকারির সামনে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রকৌশলী আব্দুল লতিফ ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মহিউদ্দিন পাটোয়ারী বাদলের সমর্থকদের মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে কাপ্তাই ইউপির বর্তমান সদস্য সজিবুর রহমান, মো. আলাউদ্দিন, মো. সালাউদ্দিন ও আব্দুল জলিল আহত হন। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক সজিবুর রহমানকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ছাড়া আব্দুল জলিলের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অন্য দু'জন কাপ্তাই উপজেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

গতকাল বুধবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান ও জেলা পুলিশ সুপার মীর মোদাচ্ছের হোসেন।

সজিবুর রহমান টানা দু'বারের ইউপি সদস্য নির্বাচিত হন। গতকাল বুধবার বিকেলে জানাজা শেষে স্থানীয় কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে। আরও অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।

এই সহিংসতার ঘটনায় দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী পরস্পরকে দোষারোপ করেছেন। আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল লতিফের দাবি, সজিবের সঙ্গে কারও বাগ্‌বিতণ্ডা হয়নি। তিনি মাঠের একপাশে দাঁড়িয়ে আওয়ামী লীগ নেতা আক্তারের সঙ্গে আলাপ করছিলেন। তখন প্রতিপক্ষের সমর্থকরা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে তার ওপর হামলা চালিয়ে তাকে হত্যা করে।

এ অভিযোগ অস্বীকার করে চেয়ারম্যান প্রার্থী মহিউদ্দিন পাটোয়ারী বাদল বলেন, সজিবসহ ২০ জনের একটি দল রাতে মা বেকারিতে গিয়ে তার কর্মীদের অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে। এতে দু'পক্ষের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। এ নিয়ে সংঘর্ষ বাধে। মূলত সজিবরা গায়ে পড়েই তাদের সঙ্গে ঝগড়া করেছে।

কাপ্তাই থানার ওসি নাছির উদ্দিন জানান, মঙ্গলবার রাতেই কাপ্তাই সুইডিশ কলোনি এলাকায় অভিযান চালিয়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে আরিফুল ইসলাম বাবু নামে এক যুবককে আটক করা হয়েছে। তিনি চেয়ারম্যান প্রার্থী মহিউদ্দিন পাটোয়ারী বাদলের সর্মথক।

মন্তব্য করুন