আলোর ঝর্ণাধারায় উদ্ভাসিত মঞ্চে নৃত্যের ঝংকার তুলে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে শেষ হয়েছে তিন দিনের জাতীয় নৃত্য উৎসব। মুজিববর্ষ ও বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে 'ড্যান্স অ্যাগেইনস্ট করোনা' শীর্ষক কর্মসূচির আওতায় এ উৎসবের আয়োজন করে শিল্পকলা একাডেমি। প্রতিদিন বিকেল ৪টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনের এই আয়োজনে অংশ নেয় সারাদেশের ৭৫টি নৃত্যদল।

গতকাল শনিবার সমাপনী আসরে নিজ নিজ পরিবেশনা নিয়ে অংশ নেয় পরম্পরা নৃত্যালয়, আমরা ক'জন শিল্পীগোষ্ঠী, কালারস অব হিল, শৈলী শিল্পচর্চা নিকেতন, জিনিয়া নৃত্যকলা একাডেমি, আরাধনা, বাংলাদেশ একাডেমি অব ফাইন আর্টস, স্বপ্ন বিকাশ কলাকেন্দ্র, পরশমণি কলাকেন্দ্র, অন্তর নৃত্য নিকেতন, নৃত্যজন, নান্দনিক নৃত্য সংগঠন, সাধনা, রিদমোস, সাত্ত্বিক গুরুকুল নৃত্যভূমি, কাথ্যাকিয়া, চিন্তক সাংস্কৃতিক একাডেমি, বহর, নাচঘর, একাডেমি অব ফাইন আর্টস ময়মনসিংহ, আর্টিস্ট্রি, নূপুর নিক্কন ডান্স একাডেমি ঢাকা, ফিফা চাকমা, রিদম ড্যান্স গ্রুপ, দিব্য সাংস্কৃতিক সংগঠন, সিএনআই গেল্গা ড্যান্স গ্রুপ ও বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি নৃত্যদল।

শেষ দিনের আয়োজনে দলগুলো মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব, যে ইতিহাস যাবে না ভোলা, আমি বঙ্গবন্ধুর কন্যা, স্বাধীনতা থেকে মুজিব শতবর্ষ, যুদ্ধের সাতকাহন, বঙ্গবন্ধুর সম্প্রীতি বন্ধনের বাংলাদেশ, দাবায়ে রাখতে পারবা না, হে বন্ধু-বঙ্গবন্ধু, সূর্যময়ী বঙ্গবন্ধু, অমর শেখ মুজিব, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশসহ বিভিন্ন গান ও কবিতার সংযোগে নৃত্যের সঙ্গে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও স্বাধীনতাকে মূর্ত করে তোলে।

মন্তব্য করুন