দেশে বয়োজ্যেষ্ঠ দুস্থ ও স্বল্প উপার্জনক্ষম অথবা উপার্জনে অক্ষম জনগোষ্ঠীর জন্য সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতায় ১৯৯৭-৯৮ অর্থবছরে 'বয়স্ক ভাতা' কর্মসূচি প্রবর্তন করা হয়। প্রাথমিকভাবে দেশের সব ইউনিয়ন পরিষদের প্রতিটি ওয়ার্ডে পাঁচজন পুরুষ ও পাঁচজন নারীসহ ১০ জন দরিদ্র বয়োজ্যেষ্ঠ ব্যক্তিকে প্রতি মাসে ১০০ টাকা হারে ভাতা প্রদানের আওতায় আনা হয়। পরে দেশের সব পৌরসভা ও সিটি করপোরেশনকে এ কর্মসূচির আওতাভুক্ত করা হয়।

বর্তমান সরকারের নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়নের অঙ্গীকার হিসেবে ২০২১ সালের মধ্যে বয়স্ক ভাতাভোগীর সংখ্যা দ্বিগুণ করার লক্ষ্যে ক্ষমতা গ্রহণোত্তর ২০০৯-১০ অর্থবছরে বয়স্ক ভাতাভোগীর সংখ্যা ২০ লাখ থেকে বৃদ্ধি করে ২২ লাখ ৫০ হাজার জনে এবং জনপ্রতি মাসিক ভাতার হার ২৫০ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ৩০০ টাকায় উন্নীত করা হয়। ২০২১-২২ অর্থবছরে ৫৭ লাখ এক হাজার বয়স্ক ব্যক্তিকে জনপ্রতি মাসিক ৫০০ টাকা হারে ভাতা প্রদান করা হবে। চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরে এ খাতে বরাদ্দ রয়েছে ৩৪৪৪.৫৪ কোটি টাকা। সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ের নিবিড় তদারকি এবং সমাজসেবা অধিদপ্তরের সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীর নিরলস পরিশ্রমে বয়স্ক ভাতা বিতরণে প্রায় শতভাগ সাফল্য অর্জিত হয়েছে।

গরিব অসহায় মানুষের সুবিধার্থে এ এক যুগান্তকারী পদক্ষেপ। নিজেদের বয়স্ক ভাতার টাকা দিয়ে তারা ওষুধ কিনবে, সংসার চালিয়ে দু'মুঠো খেতে পারবে, মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরতে হবে না- এ এক পরম পাওয়া। এর প্রভাবও অনেক। বর্তমানে বয়স্ক ভাতা কার্যক্রমে অধিকতর স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিতকরণ এবং সব মহলে এ কার্যক্রম গ্রহণযোগ্য করে তুলতে যেসব পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে তা হলো- ২০১৩ সালে প্রণীত বাস্তবায়ন নীতিমালা সংশোধন করে যুগোপযোগীকরণ, অধিক সংখ্যক নারীকে ভাতা কার্যক্রমের আওতায় অন্তর্ভুক্তির লক্ষ্যে নারীদের বয়স ৬৫ থেকে কমিয়ে ৬২ বছর নির্ধারণ, উপকারভোগী নির্বাচনে স্থানীয় সংসদ সদস্যসহ অন্যান্য জনপ্রতিনিধি সম্পৃক্তকরণ, ডাটাবেজ প্রণয়নের উদ্যোগ গ্রহণ এবং ১০ টাকার বিনিময়ে ভাতাভোগীর নিজ নামে ব্যাংক হিসাব খুলে ভাতার অর্থ পরিশোধ করা হচ্ছে।

করোনার সময়ে সরকার সবার সুবিধার্থে এ টাকা যাতে বাড়িতে বসে পেতে পারে এ জন্য মোবাইল ব্যাংকিংয়ের আওতায় 'নগদ' অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে নির্দিষ্ট সময় অন্তর টাকা পাঠিয়ে থাকে। সরকারি এ উদ্যোগে মানুষ সরকারের কাছে কৃতজ্ঞ। এটা সত্য, বর্তমান সরকার বয়স্ক ভাতার পরিধি বাড়িয়েছে। আমরা প্রত্যাশা করি, ভাতায় অর্থের পরিমাণ বাড়ানো এবং অধিক সংখ্যক বয়স্ক মানুষকে এর আওতায় আনা হোক।

শ্যামলী, ঢাকা

মন্তব্য করুন