রাজনৈতিক দল গঠনের সম্ভাবনা নাকচ করেননি ইমরান

প্রকাশ: ০৮ এপ্রিল ২০১৪      

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির দাবিতে গড়ে ওঠা গণজাগরণ মঞ্চকে রাজনৈতিক দলে রূপ দেওয়ার সম্ভাবনা নাকচ করেননি মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকার। শাহবাগ আন্দোলনের স্থায়িত্বের কারণে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল তিনি বলেন, 'গণজাগরণ মঞ্চের আন্দোলন একটি রাজনৈতিক ও সামাজিক আন্দোলন। জনগণই এ আন্দোলনের অভিভাবক। তাই জনগণই সিদ্ধান্ত নেবে, গণজাগরণ মঞ্চ রাজনৈতিক দল হবে কি হবে না।' শাহবাগে মঞ্চকর্মীদের মধ্যে প্রকাশ্য
মারামারির পর আন্দোলন সংশ্লিষ্ট ছাত্র সংগঠনগুলোর সঙ্গে আলোচনা চলছে মঞ্চের উদ্যোক্তাদের। ইমরান বলেন, 'গত কয়েক মাসে গণজাগরণ মঞ্চের সঙ্গে আন্দোলনকারী ছাত্র সংগঠনগুলোর কিছুটা দূরত্ব তৈরি হয়েছে। তারা সেই দূরত্ব ঘোচানোর চেষ্টা করছেন। এ জন্য গত দু'দিনে ছাত্র সংগঠনগুলোর সঙ্গে বৈঠকও হয়েছে। এরই মধ্যে সমস্যাগুলো চিহ্নিত করা হয়েছে।'
নতুন কর্মসূচি ঠিক করতে গণজাগরণ মঞ্চ কয়েক দফা বৈঠক করেছে। তবে আওয়ামী লীগের ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগের সঙ্গে কোনো ধরনের আলোচনা এখন আর হচ্ছে না। এ বিষয়ে ইমরান সাংবাদিকদের বলেন, 'আমাদের মূল প্রতিপক্ষ স্বাধীনতাবিরোধীরা। সরকার বা অন্য কারও সঙ্গে আমাদের কোনো বিরোধ নেই। আমাদের আন্দোলন পরিচালনার জন্য ছয় দফা দাবিনামা আছে। আমাদের পরবর্তী কর্মসূচিগুলোও এ ছয় দফাকেন্দ্রিক হবে।
এদিকে গণজাগরণ মঞ্চের সঙ্গে এখনও যুক্ত কয়েকটি বাম ছাত্র সংগঠন রাজনৈতিক দল গঠনের বিষয়ে ইমরানের বক্তব্যের সঙ্গে দ্বিমত প্রকাশ করছে। ছাত্র মৈত্রী, জাসদ ছাত্রলীগসহ পাঁচটি সংগঠনের নেতারা এ বিষয়ে বক্তব্য দিতে এবং গণজাগরণ মঞ্চের আন্দোলন কীভাবে আরও সামনের দিকে নিয়ে যাওয়া যায় সে বিষয়ে বক্তব্য তুলে ধরতে আজ সংবাদ সম্মেলন ডেকেছেন। দুপুর ১২টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে অনুষ্ঠিত হবে এ সংবাদ সম্মেলন।
এ বিষয়ে জাসদ ছাত্রলীগের সভাপতি শামসুল ইসলাম সুমন বলেন, 'গণজাগরণ মঞ্চ রাজনৈতিক দল হওয়ার কোনো প্রশ্নই আসে না। কারণ যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়ে শুরু হয়েছে মঞ্চের আন্দোলন। গণজাগরণ মঞ্চের সুনির্দিষ্ট ছয় দফার আন্দোলনকে কীভাবে সামনে এগিয়ে নেওয়া যায়_ সে বিষয়ে আমাদের বক্তব্য জানানো হবে।'